বাংলাদেশের দুই নারী জিতলেন স্বপ্নের পদক

অপেক্ষার অবসান ঘটল তৃতীয় দিনেই। দক্ষিণ এশিয়ার অলিম্পিকখ্যাত এস এ গেমসে বাংলাদেশ সোনার মুখ দেখেছে। আগের  দিন বড় প্রাপ্তি ছিল মহিলা কুস্তিগীর রিনা আকতারের রুপা। গতকাল ভারোত্তোলন থেকে আসে সেই স্বপ্নের পদকটি। সন্ধ্যায় দ্বিতীয় সোনা জিতেছেন সাতারু মাহফুজা খাতুন। দুই সোনা জয়ের কৃতিত্ব মহিলা ক্রীড়াবিদদেরই। গতকাল গৌহাটির ভোজেশ্বরী যুগ নোনি ইনডোর স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ভারোত্তোলনে মেয়েদের ৬৩ কেজি ওজনে সোনা জেতেন মাবিয়া আক্তার সিমান্ত। গত কয়েক বছর ধরেই ভারোত্তোলনে ভালোই করছে বাংলাদেশ। এক সময়ে এস এ গেমসে অ্যাথলেটিক্স, সাঁতার ও শুটিংকে ঘিরে প্রত্যাশাটা বেশি ছিল। এখন কিন্তু সেই অবস্থা নেই। বরং ওয়েট লেফটারদের দাপট তুঙ্গে। এস এ গেমসে ভারোত্তোলন ছিল শুধু পুরুষ প্রতিযোগীদের মধ্যে সীমাবদ্ধ। এবারই প্রথম মেয়েরা খেলছেন। আর প্রথমবারেই বাজিমাত করছে বাংলাদেশ। আগের দিন দুর্ভাগ্যক্রমে রুপা জিততে পারেননি মোল্লা সাবিয়া। ৪৮ কেজি ওজনে তামা জিতেই সন্তুষ্ট ছিলেন তিনি। তার কষ্টটা বুঝতে পেরেছিলেন মাবিয়া। দেশকে বড় কিছু উপহার দিতে প্রতিজ্ঞা করেই ওজন তুলে নিয়েছিলেন। স্বার্থকও হয়েছেন। তার কৃতিতে এবারের গেমসে প্রথমবারের মতো বেজে উঠল ‘আমার সোনার বাংলা’ ৩০ লাখ শহীদের বিনিময়ে পাওয়া বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত। পত পত করে উড়ল লাল সবুজের পতাকা। এরপর মেয়েদের সাঁতারে ১০০ মিটার বেষ্ট স্টোকে ১৭.৯০ সেকেন্ড সময় নিয়ে সোনা  জেতেন মাহফুজা খাতুন। ২০১০ সালে ঢাকা এসএ গেমসে বাংলাদেশ ১৮টি সোনা জিতেছিল। বিওএর মহাসচিব শাহেদ রেজা বলেছেন, এবার সেই সাফল্য ছাড়িয়ে যাবে। মাবিয়া ও মাহফুজা সোনা জয়ের পর বাংলাদেশ পদক তালিকা কোথায় গিয়ে ঠেকে তা দেখার বিষয়।