অনাবাসী ১০ বাংলাদেশি সিআইপি নির্বাচিত

অনাবাসী ১০ বাংলাদেশিকে বাণিজ্যিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি (সিআইপি) নির্বাচিত করেছে সরকার। দেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ ‘বৈদেশিক মুদ্রা প্রেরণকারী’ ক্যাটাগরি বা শ্রেণিতে তাঁদের সিআইপি নির্বাচিত করা হয়েছে।
প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় থেকে গত রোববার এ বিষয়ে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী ইতালি, সংযুক্ত আরব আমিরাত (ইউএই) ও ওমানে থাকা তিনজন করে নয়জন রয়েছেন। বাকি একজন বাহরাইনে প্রবাসী।
ইতালিপ্রবাসী তিনজনের মধ্যে দুই ভাই মোহাম্মদ ইদ্রিছ ও জাহাঙ্গীর মোহাম্মদ হোসেন রাজধানী ঢাকার রামপুরা বনশ্রীর অধিবাসী। আর নাপোলিতে অবস্থানরত ওহিদ মোল্লার গ্রামের বাড়ি মাদারীপুর জেলার শিবচরে।
ইউএইতেও আছেন দুই ভাই, সিলেটের ইসলামপুরের মোহাম্মদ মাহতাবুর রহমান ও ওলিউর রহমান। দেশটি থেকে বৈদেশিক মুদ্রা প্রেরণকারী হিসেবে সিআইপি নির্বাচিত হওয়া অপরজন হলেন কুমিল্লার আবুল কালাম।
এদিকে ওমানপ্রবাসী চট্টগ্রামের লালদীঘির সন্তান মোহাম্মদ শাহজাহান মিয়া, তাঁর স্ত্রী সাজেদা নূর বেগম ও ভাই মোহাম্মদ কামাল পাশা সিআইপি নির্বাচিত হয়েছেন।
বাহরাইনে বসবাসকারী চট্টগ্রামের আনোয়ারার মোহাম্মদ শফি উদ্দিনও সিআইপি নির্বাচিত হয়েছেন ।
প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, সিআইপি নির্বাচিত ব্যক্তিদের এক বছরের জন্য কার্ড দেওয়া হবে, যা দেখিয়ে তাঁরা ঢাকায় সচিবালয়ে ঢুকতে পারবেন। ব্যবসা-সংক্রান্ত ভ্রমণে তাঁরা বিমান, সড়ক, রেল ও নৌপথে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে আসন সংরক্ষণের সুযোগ পাবেন এবং বিমানবন্দরে ভিআইপি লাউঞ্জ-২ ব্যবহার করতে পারবেন।
অনাবাসী বাংলাদেশি সিআইপিরা দেশে বিনিয়োগ করতে চাইলে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের সমান সুযোগ পাবেন। দেশ-বিদেশে উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের সঙ্গে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে বৈঠক করতে পারবেন।
স্বাধীনতা দিবস, বিজয় দিবস, শহীদ দিবসসহ জাতীয় দিবসে বিদেশে বাংলাদেশ মিশনের অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ পাবেন অনাবাসী সিআইপিরা।