লন্ডন ই কমার্স ফেয়ার : ২ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ প্রত্যাশা

শুক্রবার শেষ হলো লন্ডনে দুইদিন ব্যাপী ২য় বাংলাদেশ ই-কমার্স ফেয়ার ২০১৫। ১৩ নভেম্বর বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে এই মেলার উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।
মেলার উদ্বোধনী দিনে বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের সঙ্গে ৩টি প্রতিষ্ঠানের এবং আইসিটি ডিভিশনের সঙ্গে ১টি প্রতিষ্ঠানসহ মোট ৪টি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়। বাংলাদেশ হাই-টেক পার্কের সঙ্গে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত ৩টি প্রতিষ্ঠান হলো (১) টেলিকম এশিয়া (২) সিমার্ক (বাংলাদেশ) লিমিটেড ও (৩) টেকশেড প্রাইভেট লিমিটেড। অপরদিকে আইসিটি ডিভিশনের সঙ্গে সমঝোতা স্বারক স্বাক্ষরিত হয় পেজা বাংলাদেশ লিমিটেডের। সিঙ্গাপুর ভিত্তিক টেলিকম এশিয়ার প্রধান নির্বাহী মো. শাফায়েত আলম পেমেন্ট গেটওয়ে, ট্রিপল প্লে সলিউশন, আইটি ও কনজ্যুমার ইলেকট্রনিক্স প্রোডাক্ট এবং প্রাইভেট এসটিপি ইত্যাদি খাতে আগামী কয়েক বছরে ১ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগের আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
সিমার্ক (বাংলাদেশ) লিমিটেড আইটি একাডেমি, সফটওয়্যার ও হার্ডওয়্যার খাতে ৫০-১০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার বিনিয়োগের প্রত্যাশা ব্যক্ত করেছেন। লন্ডনভিত্তিক আইটি প্রতিষ্ঠান টেকশেড প্রাইভেট লিমিটেড নতুন কম্পিউটার ব্রান্ড ডিজি‌ (ডেলটা গলফ) প্রস্তুতকরণের প্রত্যাশা জানিয়ে আগামী দুই বছরে প্রাথমিকভাবে ৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার বিনিয়োগের তথ্য জানালেও কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক সুশান্ত দাস গুপ্ত জানান বিনিয়োগের পরিমাণ আরো অনেক বেশি হবে, প্রাথমিক বিনিয়োগ হিসাবে আমরা এটা নির্ধারণ করেছি।
বাংলাদেশি ফ্রি-ল্যান্সারদের বহুল-প্রতীক্ষিত অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ে সমস্যা সমাধানে পেজা বিডির সঙ্গেও একই সঙ্গে আরেকটি সমঝোতা স্বারক স্বাক্ষর করে আইসিটি ডিভিশন। প্রাথমিকভাবে পেজা তাদের বিনিয়োগের পরিমাণ উল্লেখ না করলেও তা উল্লেখযোগ্য মাত্রার হবে বলে আশা প্রকাশ করেন পেজা’র সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যার নাদিমুর রহমান। সেই অনুযায়ী আগামী কয়েক বছরে এই বিনিয়োগ ২ বিলিয়ন ডলার অতিক্রম করবে বলে প্রত্যাশা করা হচ্ছে।
ব্রিটেনে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাই-কমিশনার মো. আব্দুল হান্নান, ব্রিটেনের অল পার্টি পার্লামেন্টারি গ্রুপের চেয়ার পল স্কেলী এমপি, বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি আব্দুল মাতলুব আহমেদ, বাংলাদেশ হাই-টেক পার্কের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হোসনে আরা বেগম, কম্পিউটার জগতের চিফ এক্সিকিউটিভ আব্দুল ওয়াহেদ তমাল ও শমী কায়সারসহ ব্রিটেনের ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দও মেলায় যোগ দেন।