জ্যামাইকার পাবলিক স্কুলে ‘বাংলা স্কুল’

নিউইয়র্ক: যুক্তরাষ্ট্রের অভিবাসী বান্ধব সিটি নিউইয়র্কে বেড়ে চলেছে ইমিগ্র্যান্ট কমিউনিটির সংখ্যা। এদের মধ্যে বাংলাদেশীদের অবস্থান বেশ শক্ত বলা চলে। সিটির কুইন্স, ম্যানহাটন, ব্রকলীন, ব্রঙ্কস ও স্ট্যাটেন আইল্যান্ড এই ৫টি ব্যুরোতেই বসবাস বাড়ছে বাংলাদেশী কমিউনিটির। এর মধ্যে ব্রুকলীনের চার্চ ম্যাকডোন্যাল্ডস, ব্রঙ্কসের পার্কচেস্টার-ক্যাসেল হীল, কুইন্সের জ্যাকসন হাইটস-জ্যামাইকা ও এস্টোরিয়াতে প্রবাসী বাংলাদেশীদের বসবাস উল্লেখযোগ্য হারে বেড়েছে। একই সাথে বাড়ছে বাংলাদেশী-আমেরিকান শিক্ষার্থীর সংখ্যা। চাহিদা ও বাস্তবতার নিরীখে সিটির পাবলিক স্কুলগুলো এখন চালু করছে ‘বাংলা স্কুল’ নামে বাংলা ভাষা শিক্ষা কোর্স।

এ ধারাবাহিকতায় গত মঙ্গলবার (১০ নভেম্বর) বাংলাদেশী অধ্যুষিত কুইন্সের জ্যামাইকার ‘ইস্টউড স্কুল তথা পিএস ৯৫ কিউ’-তে আনুষ্ঠানিকভাবে চালু করা হয়েছে বাংলা স্কুল। দিনটি উদযাপন করতে ওইদিন স্কুলে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের অভিভাবক ও শিক্ষকদের তত্ত্বাবধানে পালিত হয়েছে ‘বাংলাদেশ ডে সেলিব্রেশন’।

অনুষ্ঠানটি শুরু করা হয়েছিল বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে। আনন্দঘন পরিবেশে আয়োজন করা হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশী প্রজন্মরা তাদের মাতৃভাষায় গান, নাচ ও বিভিন্ন সাংস্কৃতিক পরিবেশনার মধ্য দিয়ে মাতিয়ে রাখে। সকলের স্বতস্ফূর্ত অংশগ্রহণে স্কুল প্রাঙ্গন পরিণত হয়েছিলো একখন্ড বাংলাদেশে।

এদিকে অভিভাবকদের দাবির মুখে স্কুলে বাংলাভাষা শিক্ষা কোর্স চালু করলেও প্রয়োজনীয় শিক্ষক নেই বলেই জানান প্রিন্সিপাল কিম হিল।

তবে প্রত্যাশার চেয়ে বেশী বাংলাদেশী শিক্ষার্থী তার স্কুলে অধ্যায়ন করছে। অন্যান্য জাতিগোষ্ঠীর তুলনায় বাংলাদেশী-আমেরিকান শিক্ষার্থীরা মেধা ও যোগ্যতায় এগিয়ে থাকে বলেও জানান তিনি। তাই তার স্কুলে বাংলা ভাষার ক্লাস চালু করতে পেরে তিনি তৃপ্ত।