বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উেক্ষপণে ফ্রান্সের সঙ্গে চুক্তি

দেশের প্রথম স্যাটেলাইট ‘বঙ্গবন্ধু-১’ মহাকাশে উেক্ষপণের জন্য ফ্রান্সের থ্যালাস এলেনিয়া স্পেসের সঙ্গে চুক্তি করেছে সরকার। গতকাল বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় হোটেল সোনারগাঁওয়ে ‘বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট সিস্টেম’ বিষয়ক চুক্তি সম্পন্ন হয়। ২০১৭ সালের ১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবসে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট উেক্ষপণের লক্ষ্য ঠিক করা হয়েছে।

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ ও থ্যালাস এলিনিয়া স্পেসের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জ্যঁ লইক গ্যাল নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন। থ্যালাস এলেনিয়া স্পেস এক হাজার ৯৫১ কোটি ৭৫ লাখ টাকা দর প্রস্তাব করে। চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম, বিশেষ অতিথি টেলিযোগাযোগ এবং আইটি মন্ত্রণালয় বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ইমরান আহমেদসহ বিটিআরসি ও থ্যালাস এলেনিয়া স্পেসের উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তারা।

তারানা হালিম বলেন, ‘বাংলাদেশ নিজস্ব স্যাটেলাইট উেক্ষপণের মধ্য দিয়ে একটি মর্যাদাসম্পন্ন রাষ্ট্রে পরিণত হবে। প্রতি বছর রাজস্ব হিসেবে আয় বাড়বে। স্যাটেলাইটের জন্য ১০০ কোটি টাকা বাংলাদেশের ব্যয় হয়। নিজস্ব স্যাটেলাইট থাকলে এই টাকা দেশেই থাকবে। এই প্রকল্পে সরকারের যে টাকা খরচ হচ্ছে স্যাটেলাইট ভাড়া দিয়ে ৬-৭ বছরে উঠিয়ে নেয়া সম্ভব হবে।’

বিটিআরসি চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ বলেন, এত দিন দেশের নিজস্ব স্যাটেলাইট না থাকায় অন্য দেশের স্যাটেলাইট ভাড়া করতে হতো। দেশের স্যাটেলাইট টিভি চ্যানেলগুলো বিভিন্ন দেশের স্যাটেলাইট ভাড়া করে অনুষ্ঠান সমপ্রচার করে। নিজস্ব স্যাটেলাইট হলে ভাড়ার টাকা আর বিদেশে পাঠাতে হবে না। স্যাটেলাইট প্রসঙ্গে শাহজাহান বলেন, স্যাটেলাইটে ৪০টি ট্রান্সপন্ডার ক্যাপাসিটি থাকবে। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের জন্য দুটি গ্রাউন্ড স্টেশন স্থাপনের জন্য গাজীপুরের জয়দেবপুর এবং রাঙ্গামাটির বেতবুনিয়ায় স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে।

থ্যালাস এলিনিয়া স্পেসের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জ্যঁ লইক গ্যাল বলেন, ‘বাংলাদেশের অর্থনীতি দ্রুত গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। এ ক্ষেত্রে নিজস্ব স্যাটেলাইট উেক্ষপণ সঠিক সিদ্ধান্ত। আমরা বাংলাদেশের এই উদ্যোগের সঙ্গে থাকতে পেরে আনন্দিত।’