৬০টিরও বেশি দেশের জন্য অন অ্যারাইভাল ভিসা আছে: প্রধানমন্ত্রী

পর্যটন শিল্পের অগ্রগতির লক্ষ্যে বাংলাদেশে ৬০টিরও বেশি দেশের জন্য ‘অন অ্যারাইভাল’ ভিসা চালু হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পর্যটক আসলেই যেন সাথে সাথে ভিসা পান এজন্য এ পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। একে যুগান্তকারী ঘটনা বলে উল্লেখ করেন তিনি।

মঙ্গলবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে দুই দিন ব্যাপী পর্যটন সম্মেলনের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন শেখ হাসিনা। এ সময় ২০১৬ সালকে পর্যটন সাল হিসেবে ঘোষণা করেন।

জাতিসংঘ বিশ্ব পর্যটন সংস্থার সহায়তায় বেসরকারি বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের যৌথ উদ্যোগে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

পর্যটন শিল্পের বিভিন্ন উন্নয়ন ও অগ্রগতির কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, পর্যটন শিল্পের সার্বিক উন্নয়ন ও বহির্বিশ্বে বাংলাদেশকে পর্যটন গন্তব্য ‘টুরিস্ট ডেস্টিনেশন’ হিসেবে বিশ্বে প্রচারের জন্যে সরকার জাতীয় নীতিমালা ২০১০ ঘোষণা করেছে। ট্যুরিজম বোর্ড ও ট্যুরিস্ট পুলিশ বাহিনী গঠন করেছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, স্থানীয় জনগোষ্ঠীকে পর্যটন শিল্পের সাথে সম্পৃক্ত করতে কমিউনিটি ভিত্তিক ট্যুরিজম চালু করেছি। এরফলে স্থানীয়ভাবে কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে বলে জানান তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, সার্কভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে যাত্রী পরিবহনের জন্যে সম্প্রতি বাংলাদেশ, ভুটান, ভারত ও নেপাল মোটর ভেহিক্যাল অ্যাগ্রিমেন্ট স্বাক্ষর হয়েছে। এর ফলে আন্তঃদেশীয় পর্যটকদের আগমন বাড়বে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সিলেটের জাফলংকে এক্সক্লুসিভ টুরিস্ট জোন হিসেবে গড়ে তোলার কার্যক্রম দ্রুত এগিয়ে চলছে। এ জোন নির্মাণে বিদেশি বিনিয়োগ আকর্ষণের পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। শেখ হাসিনা বলেন, এটাকে অর্থনৈতিক জোন হিসেবেও গড়ে তোলা হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, অভ্যন্তরীণ নৌ-পর্যটনের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক বা আঞ্চলিক নৌ-পর্যটনে বাংলাদেশকে সম্পৃক্ত করার লক্ষ্যে ভারতের সাথে বাংলাদেশের নৌ-প্রটোকল যাত্রী পরিবহনের বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত করার কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।