অবশেষে বন্দরে নিউমুরিং টার্মিনাল চালু

অবশেষে চালু হয়েছে চট্টগ্রাম বন্দরের সর্ববৃহৎ কনটেইনার টার্মিনাল নিউমুরিং। প্রতিষ্ঠার আট বছর পর একসঙ্গে চালু হলো এ টার্মিনালের চারটি জেটি। এখন থেকে এ চারটি জেটিতে বাড়তি চারটি জাহাজ একসঙ্গে নোঙর করতে পারবে। বছরে এ চারটি জেটি কনটেইনার হ্যান্ডেল করতে পারবে বাড়তি ১৪ লাখ টিইইউএস।

গতকাল শনিবার বেলুন উড়িয়ে চট্টগ্রাম বন্দরের বহুল আলোচিত এনসিটির উদ্বোধন করেন নৌ পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান। এনসিটির দুই নম্বর জেটিতে এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বন্দর ব্যবহারকারী ও ব্যবসায়ী নেতারা উপস্থিত ছিলেন। ৭৩৭ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত টার্মিনালটি ব্যবহারের জন্য ২০০৭ সালে প্রস্তুত হলেও এর অপারেটর ঠিক করতেই কেটে গেছে আট বছর। টার্মিনালটি বানাতেও প্রায় সাত বছর সময় লেগেছে বন্দর কর্তৃপক্ষের।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে মন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন, স্থানীয় সংসদ সদস্য এমএ লতিফ, চট্টগ্রাম বন্দরের চেয়ারম্যান রিয়ার অ্যাডমিরাল নিজাম উদ্দিন আহমেদ, টার্মিনাল পরিচালনার দায়িত্ব পাওয়া সাইফ পাওয়ারটেক লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তরফদার রুহুল আমীন।

এনসিটির ২ ও ৩ নম্বর জেটি এককভাবে পরিচালনা করবে তরফদার রুহুল আমিনের মালিকানাধীন সাইফ পাওয়ারটেক লিমিটেড। ৪ ও ৫ নম্বর জেটি সাইফ পাওয়ারটেকসহ যৌথভাবে তিনটি প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করবে। এখানে যৌথভাবে থাকা অন্য দুটি প্রতিষ্ঠান হচ্ছে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিনের মালিকানাধীন এমএইচ চৌধুরী লিমিটেড ও সাংসদ একরামুল করিমের প্রতিষ্ঠান এঅ্যান্ডজে এন্টারপ্রাইজ। প্রাথমিকভাবে এনসিটি পরিচালনা করতে অপারেটররা ২০টি ট্রেইলর ও ৬টি এম্পটি কনটেইনার হ্যান্ডলারসহ প্রয়োজনীয় কিছু সরঞ্জাম সংগ্রহ করেছেন। এ টার্মিনালের জন্য ভারী যন্ত্রপাতি ক্রয় করবে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ।