পুরস্কার প্রধানমন্ত্রীকে উৎসর্গ করলেন আতিউর

এশিয়ার সেরা কেন্দ্রীয় ব্যাংক প্রধানের স্বীকৃতি দেশের পরিশ্রমী ও উদ্যমী উদ্যোক্তা, মুক্তিযুদ্ধের শহিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উৎসর্গ করেছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর আতিউর রহমান।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পক্ষ থেকে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, শনিবার পেরুর রাজধানী লিমায় বাণিজ্য সাময়িকী “দি ইমার্জিং মার্কেটস”র গ্লোবাল ক্যাপিটালের ডেপুটি ডাইরেক্টর রুদ বেড্ডোসের কাছ থেকে তিনি এ পুরস্কার গ্রহণ করেন।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দেশের সামষ্টিক অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা বজায় রাখার পাশাপাশি সামাজিক দায়বোধ সম্পন্ন ও সবুজ অর্থায়ন এবং টেকসই আর্থসামাজিক উন্নয়নে অসামান্য অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ আতিউরকে ‘সেন্ট্রাল ব্যাংক গভর্নর অব দ্য ইয়ার ২০১৫ ফর এশিয়া’ পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত করা হয়।

অনুষ্ঠানে বেড্ডোস বলেন, গভর্নর রহমান গত কয়েক বছর ধরে বাংলাদেশের ৬ শতাংশের ওপরে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জন, উদ্ভাবনীমূলক আর্থিক অন্তর্ভুক্তি কার্যক্রমের মাধ্যমে দ্রুত দারিদ্র্য হ্রাস, বিনিময় হারের স্থিতিশীলতা এবং ক্রমবর্ধমান বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ সংরক্ষণে তাৎপর্যপূর্ণ অবদান রেখেছেন। তিনি যে তাঁর ওপর ন্যস্ত দায়িত্ব পালনকালে মূল স্টেকহোল্ডারদের অনুপ্রাণিত করতে পেরেছেন এবং কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গৃহীত নীতির ওপর তাদের আস্থার প্রতিফলন ঘটাতে পেরেছেন এ পুরস্কার সেটিরই স্বীকৃতি বহন করে।

গভর্নর আতিউর বলেন, গত কয়েক বছর ধরে বৈশ্বিক গড় জিডিপি’র প্রায় দ্বিগুণ হারে বাংলাদেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধি অর্জিত হয়েছে। এটি দেশের টেকসই অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির পরিচায়ক। একইসঙ্গে দেশে মূল্য স্থিতিশীলতা ও সামষ্ঠিক অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা বিরাজ করছে। দারিদ্র্যের হার দ্রুত কমছে এবং বহিঃখাতের শক্তিশালী অবস্থা অব্যাহত রয়েছে। এটি সম্ভব হয়েছে ব্যাপকভিত্তিক টেকসই আর্থসামাজিক প্রবৃদ্ধির জন্য অন্তর্ভুক্তিমূলক সবুজ অর্থায়ন নীতিমালা গ্রহণের কারণে।

বিশ্বব্যাংকের দক্ষিণ এশিয়ার ভাইস প্রেসিডেন্ট আনেত্তি ডিক্সন বলেন, এ পুরস্কার বাংলাদেশ ব্যাংকে গভর্নর ড. আতিউর রহমানের কাজের বিশাল স্বীকৃতি, যা আগামী বছরগুলোতে সহজ অর্থায়নে সহায়তা করবে।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে ইমার্জিং মার্কেটসের ব্যবস্থাপনা সম্পাদক টবি ফিলদেসসহ বিভিন্ন দেশের অর্থমন্ত্রী, কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর, বিশ্বব্যাংক ও আইএমএফের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিতি ছিলেন।