সেই পুরনো চেহারায়

পাটের সঙ্গে পল্লী-বাংলার সম্পর্ক যেমন নিবিড়, তেমনি পুরনো। বছর তিরিশেক আগেও পাটকে বাদ দিয়ে এদেশের অর্থনীতির কথা কল্পনাও করা যেত না। তখন একে বলা হত সোনালী আঁশ। তবে একপর্যায়ে বিশ্ববাজারে পাটের চাহিদা কমে যাওয়ায় সেই ‘সোনালী আঁশ’ পরিণত হয় ‘কৃষকের গলার ফাঁসে।’ দিন আবার বদলেছে। আবারও সুদিন ফিরেছে পাটের। এখন তাই পান্না সবুজ পাট ক্ষেত, আর রাস্তার ধারে ‘সোনালী আঁশ’ শুকানোর সেই পুরনো দৃশ্যগুলো আবার ফিরে এসেছে বাংলার পল্লীতে।