পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের গ্রাহক সংখ্যা ১ কোটি ২৯ লাখ

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

প্রতিমাসে নতুন লাইন নির্মাণ এবং বিদ্যুৎ সংযোগের মধ্যদিয়ে বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন কার্যক্রম সারাদেশে ব্যাপকভাবে সমপ্রসারিত হচ্ছে। প্রতি মাসে লাখ লাখ পরিবারকে বিদ্যুৎ সংযোগের আওতায় আনা হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত ভিশন-২০২১ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ২০১৮ সালের মধ্যে দেশের বিদ্যুৎ প্রত্যাশী পরিবারের মাঝে বিদ্যুৎ সুবিধা পেঁৗছে দিতে বদ্ধপরিকর বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড। এই বিশাল কর্মযজ্ঞ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে শুধু মাত্র গত সেপ্টেম্বর মাসেই সমগ্র দেশে পল্লী বিদ্যুতায়ন কার্যক্রমের আওতাধীন এলাকায় ৩ লাখ ২০ হাজার ৬৭৪টি পরিবারকে নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদান করা হয়েছে। ২০১৫-২০১৬ অর্থ বছরে ৩০ লাখ নতুন গ্রাহককে বিদ্যুৎ সুবিধার আওতায় নিয়ে আসার যে লক্ষ্যমাত্রা বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড নির্ধারণ করে তারই ধারাবাহিকতায় প্রতি মাসে এভাবে নতুন গ্রাহকদের বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদান করা হচ্ছে। বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড দেশের বিশাল জনগোষ্ঠীকে বিদ্যুৎ সুবিধার আওতায় নিয়ে আসার জন্য প্রতিশ্রুতিবদ্ধ এবং এরই লক্ষ্যে কর্মকর্তা/কর্মচারীগণের ঐকান্তিক প্রচেষ্টার ফলে তা অর্জিত হয়েছে। সব মিলিয়ে বাপবিবো সেপ্টেম্বর’২০১৫ পর্যস্ত সমগ্র দেশে ১ কোটি ২৯ লাখ ৬৭৪টি পরিবারকে বিদ্যুৎ সুবিধার আওতায় এনেছে। যা বাপবিবো এবং পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি সমূহের একটি বিশাল অর্জন ।
বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মঈন উদ্দিনের বলিষ্ঠ নেতৃত্ব এবং ঐকান্তিক প্রচেষ্টার ফলশ্রুতিতে এই বিপুল সংখ্যক পরিবারকে বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদান করা সম্ভব হয়েছে। ধারাবাহিকভাবে এই সফল কার্যক্রম সম্পন্নের জন্য বাপবিবোর্ডের কর্মকর্তা ও কর্মচারীসহ সকল পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি’র কর্মকর্তা/কর্মচারীগণকে বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়েছেন এবং এই অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে সংশ্লিষ্ট সকলকে নির্দেশনা প্রদান করেন।
এদিকে বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড দেশের বিদ্যুৎ প্রত্যাশী জনগণের দোর গোড়ায় বিদ্যুৎ সুবিধা পেঁৗছে দেয়ার লক্ষ্যে ২০২১ সালের মধ্যে ১ লাখ ৩০ হাজার নতুন বিদ্যুৎ বিতরণ লাইন নির্মাণ, ১,১০৭টি উপকেন্দ্র নির্মাণ, ৫টি নতুন প্রকল্প গ্রহণ, প্রতি বছর ২৫ হাজার কিলোমিটার বৈদ্যুতিক লাইন নির্মাণ, ৫৪ লাখ গ্রাহকের জন্য প্রি-পেইড মিটার এবং সিস্টেম লস সিঙ্গেল ডিজিটে হ্রাস করাসহ নানা পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। এছাড়া বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড ইতোপূর্বে ৩ লাখ সেচ গ্রাহককে সংযোগ প্রদান করেছে। যার মাধ্যমে দেশ খাদ্যে স্বয়ং সম্পূর্ণতা অর্জনে সক্ষম হয়েছে। বাপবিবো ইতোমধ্যে ৩ হাজার শহীদ/যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের প্রত্যেককে ২০০ ইউনিট পর্যন্ত বিনামূল্যে বিদ্যুৎ সুবিধা প্রদান করেছে, ১৫ হাজার ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের প্রতিটিকে ১০০ ইউনিট বিল মওকুফ, আশ্রায়ণ প্রকল্পের মাধ্যমে ৫৩৬টি গ্রামের ৪০ হাজার পরিবারকে বিদ্যুৎ সুবিধা প্রদান, ১৫,২৫০টি সোলার হোম সিস্টেম স্থাপন, ৪০টি সোলার ইরিগেশন পাম্প স্থাপন এবং ১৫টি উপজেলা সদরের প্রত্যেকটিতে ৩০ কিলোওয়াট সোলার প্যানেল স্থাপনের কাজ সম্পন্ন করেছে।
ডিজিটাল কার্যক্রমের অংশ হিসেবে বিলিং সফ্টওয়্যারের মাধ্যমে বিলিং কার্যক্রম পরিচালনা করছে বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড। অনলাইন পদ্ধতিতে বিদ্যুৎ সংযোগের আবেদন গ্রহণ বাপবিবোর্ডের একটি যুগান্তকারী পদক্ষেপ। এছাড়াও ডিজিটাল পদ্ধতিতে ক্রয় প্রক্রিয়া সম্পাদন, এসএমএস ও ইউনিয়ন তথ্য কেন্দ্রের মাধ্যমে বিদ্যুৎ বিল গ্রহণ এবং মালামালের ব্যবস্থাপনা অনলাইন পদ্ধতিতে সম্পাদন বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের কার্যক্রমকে ব্যাপকভাবে গতিশীল করেছে।