ঈদে সুন্দরবন ও ষাটগুম্বুজে পর্যটকদের ভিড়

ঈদুল আজহার ছুটিতে বাগেরহাট জেলার অন্যতম পর্যটন স্পট সুন্দরবন ও ষাটগুম্বুজ মসজিদ এলাকায় পর্যটকদের ছিল উপচে পড়া ভিড়।

প্রতিবছরের মত এবারও ঈদুল আজহা উপলক্ষে বাইরে থেকে আসা হাজার হাজার পর্যটকের সার্বিক নিরাপত্তা ও পর্যটন স্পটগুলোতে নিরাপদে যাতায়াত নিশ্চিত করতে পূর্ব সুন্দরবন বিভাগ ও জেলা প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের পক্ষ থেকে নেওয়া হয় নানা উদ্যোগ। এজন্য পূর্ব সুন্দরবন বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ছুটি বাতিল করা হয়।

আর ষাটগুম্বুজ মসজিদ, খানজাহান আলীর মাজার, বারাকপুরে অবস্থিত সুন্দরবন রিসোর্ট সেন্টার, শহরের দশানীপার্ক ও দড়াটানা নদী সংলগ্ন পৌরপার্কসহ জেলার পর্যটন স্পটগুলোতে পর্যটকদের ছিল উপচে পড়া ভিড়।

ষাটগুম্বুজ মসজিদ ও খানজাহান আলীর মাজার এলাকায় পর্যটকদের আকর্ষণ করতে বিভিন্ন ধরনের আলোকসজ্জার ব্যবস্থা করা হয়। আবহাওয়া খারাপ থাকার মধ্যেও জেলার গুরুত্বপূর্ণ এসব পর্যটনস্পটে প্রচুর পর্যটকের আগমন ঘটে।

পূর্ব সুন্দরবন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) মো. সাইদুল ইসলাম জানান, ঈদে সুন্দরবনের করমজল, কচিখালী, হিরন পয়েন্ট ও দুবলারচরসহ পর্যটন স্পটগুলোতে আগমন ঘটে হাজার হাজার পর্যটকের। পর্যটদের সার্বিক নিরাপত্তার ব্যবস্থা ও পর্যটন স্পটগুলোতে নিরাপত্তা নিশ্চিত করা ও চোরা শিকারিদের তৎপরতা বন্ধে পূর্ব সুন্দরবন বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও বনরক্ষীদের ঈদের ছুটি বাতিল করা হয়।

বাগেরহাট ষাটগুম্বুজ মসজিদের কাস্টডিয়ান গোলাম ফেরদৌস জানান, ঈদুল আজহা ছুটিতে বিশ্ব ঐতিহ্য ষাটগুম্বুজ মসজিদে পর্যটকদের ব্যাপক আগম ঘটে। পর্যটকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য জেলা প্রত্নতত্ত্ব বিভাগ মসজিদ এলাকায় আনসার মোতায়েন করা হয়েছে। কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।