নিউইয়র্কে নভেম্বরে ‘বাংলা সিনে অ্যাওয়ার্ড ২০১৫’

বাংলাদেশের বাইরে দেশের চলচ্চিত্রকে তুলে ধরতে বিএনএস লজিস্টিক বাংলাদেশ ও নিউইয়র্কের গ্লোবাল বিজনেস কমিউনিকেশন নেটওয়ার্ক যৌথভাবে ‘বাংলা সিনে অ্যাওয়ার্ড ২০১৫’ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে নিউইয়র্কে। এর প্রথম আসর বসবে ১৫ নভেম্বর রবিবার নিউইয়র্কের জ্যামাইকার অ্যামাজুরা কনসার্ট হলে অথবা কোল্ডেন সেন্টারে।

নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসের পালকি পার্টি সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার রাতে এই ঘোষণা দেন অনুষ্ঠানের আয়োজক বিএনএস লজিস্টিক বাংলাদেশের ম্যানেজিং ডিরেক্টর সালাহউদ্দিন আহমেদ শিমুল।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাষ্ট্রে সফররত প্রখ্যাত চলচ্চিত্র নির্মাতা হাজী হায়াত, ঢাকার ফ্যাশন ও লাইফ স্টাইল ম্যাগাজিন সম্পাদক কায়সার আহমেদ বাবু ও নিউইয়র্কে অনুষ্ঠানের দায়িত্বপ্রাপ্ত ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট প্রতিষ্ঠান গ্লোবাল বিজনেস কমিউনিকেশন নেটওয়ার্কের সিইও এনামুল হক। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ‘বাংলা সিনে অ্যাওয়ার্ড ২০১৫’-র মিডিয়া উপদেষ্টা ও সাপ্তাহিক বর্ণমালা‘র প্রধান সম্পাদক মাহফুজুর রহমান। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট প্রতিষ্ঠান রেনেক্সের কর্মকর্তা ও সঙ্গীত শিল্পী কামরুজ্জামান বকুল।

চলচ্চিত্র নির্মাতা হাজী হায়াৎ বলেন, আমাদের বিশ্বাস বহির্বিশ্বে এ ধরনের অ্যাওয়ার্ড আয়োজন বাংলাদেশের তথা ঢালিউডের বাণিজ্যিক চলচ্চিত্রের প্রসার ও উন্নয়নে ব্যাপক ভূমিকা রাখবে। এই অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানের জুরি বোর্ডের নেতৃত্বে থাকছেন জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত বিচক্ষণ পরিচালক মহিউদ্দিন ফারুক। ইতোমধ্যে ২০১৪-১৫ সালে বাংলাদেশে মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমাগুলোর মধ্যে থেকে প্রাথমিকভাবে ১৮টি সিনেমা থেকে ২৫টি বিভাগে বিজয়ী নির্বাচন করা হয়েছে।

এর আগে বিএনএস লজিস্টিক বাংলাদেশের ম্যানেজিং ডিরেক্টর সালাহউদ্দিন আহমেদ শিমুল বলেন, প্রযুক্তি নির্ভর এই যুগে বাংলা সিনেমা একদিন বিশ্ব দরবারে নিজ স্থান দখল করে নেবে- শিল্পী ও কলাকুশলীদের মধ্যে সেই বিশ্বাস ও প্রেরণা যোগাতে আমাদের এই আয়োজন একটি ক্ষুদ্র প্রয়াস মাত্র। তিনি আরো বলেন, আমরা মনে করি বাংলা সিনেমার বিশ্বায়নের মধ্যে দিয়ে একে নতুন বাজার সৃষ্টির সুযোগ করে দেয়া যায়। আর সেই প্রয়াসে আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে আমাদের এই ‘বাংলা সিনে অ্যাওয়ার্ড’র আয়োজন। এই প্রচেষ্টা বাংলাদেশের চলচ্চিত্রকে আন্তর্জাতিক মানে উন্নীত করার একটি ধাপ হিসাবেও বিবেচনা করা যেতে পারে।

আয়োজকরা জানান, নিউইয়র্কে এই ‘বাংলা সিনে অ্যাওয়ার্ড ২০১৫’ আয়োজনে প্রধান অতিথি হিসাবে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, বিশেষ অতিথি হিসাবে মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকী উপস্থিত থাকবেন। এ ছাড়াও বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকবেন বিশিষ্ট সাংষ্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ও এফডিসির সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক পিযুষ বন্দোপাধ্যায় এবং জাতীয় পুরস্কারে ভূষিত বিশিষ্ট চলচ্চিত্র ব্যক্তিত্ব কাজী হায়াত ও মিডিয়া ব্যক্তিত্ব অঞ্জন রায়।