দুখিনী ছোট রাজকন্যার গল্প

মাহবুবুল হক শাকিল

ছোট মেয়েটি ছোট রাজকন্যার মতোই ভীষণ জেদি। তার খেয়াল থাকে খুঁটিনাটি সবকিছুতে। প্রায় ঈদেই তার বাবা থাকেন জেলখানায়। বাইরে থাকলেও মার্কেটে যাওয়ার সময় হয় না। স্কুলে তার বন্ধুরা গল্প করে, কার বাবা কী কী কিনে দিলেন। মেয়েটির মন খারাপ হয়ে যায়। তার বড় বোন আর বড় দুই ভাই অভ্যস্ত এই নিয়মে। কিন্তু মেয়েটি মানতে নারাজ। কোনো এক ঈদে বাবা জেলের বাইরে। মেয়ের বায়না- আপনি আমাকে নিয়ে মার্কেটে না গেলে আমি ঈদের জামা কিনব না। কী আর করা! বাবা মেয়েকে নিয়ে নিউমার্কেট গেলেন। সে সময়ের ঢাকার সবচেয়ে ভালো মার্কেট। মেয়েটি খুশিতে আত্মহারা। মেয়েটি মেট্রিক পরীক্ষা দেবে। বাবা বললেন, তোর পরীক্ষাকেন্দ্র তো ধানমন্ডি বয়েজ স্কুল, আমার অফিসে যাওয়ার পথেই, তোকে আমি নামিয়ে দেব। মেয়ে নারাজ। সে বাবার গাড়িতে করে পরীক্ষা দিতে যাবে না। মেয়েটি সে বছর মেট্রিক পরীক্ষার মেধা তালিকায় মেয়েদের মধ্যে অষ্টম হলো। সেই মেয়েটি ইন্টারমিডিয়েট পরীক্ষা দিতে পারেনি বাংলাদেশে। তার আগেই বাবা-মাসহ পরিবারের ১৮ জন এক রাতে নিহত হন। বড় বোনের সঙ্গে সে ছিল তখন দেশের বাইরে। পরীক্ষার হলে তার আর ফিরে আসা হয় না। মেয়েটির নাম- শেখ রেহানা। বাবার নাম বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।