‘পোশাক শিল্পের উন্নয়নে বাংলাদেশকে সহায়তা করবে যুক্তরাষ্ট্র’

তৈরি পোশাক শিল্পের উন্নয়নে বাংলাদেশকে সহায়তা দিতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র প্রতিশ্রুতিবদ্ধ বলে জানিয়েছেন, বাংলাদেশে নিযুক্ত দেশটির রাষ্ট্রদূত মার্সিয়া স্টেপেনস ব্লুম বার্নিকাট। বুধবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎকালে তিনি এ সব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের এ সৌজন্য সাক্ষাৎ অনুষ্ঠিত হয়। পরে প্রধানমন্ত্রীর প্রেসসচিব ইহসানুল করিম এ বিষয়ে সাংবাদিকদের অবহিত করেন।

মার্কিন রাষ্ট্রদূত বলেন, বাংলাদেশের তৈরিপোশাক খাতের উন্নয়নে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। জিএসপির প্রসঙ্গ উল্লেখ না করে বার্নিকাট বাংলাদেশের তৈরি পোশাক শিল্পের বিষয়টি ‘রাজনৈতিক নয়’ বলে মন্তব্য করেন।

এ বিষয়ে তিনি বলেন, বাংলাদেশ যেন শর্তাবলী পূরণ করতে পারে, সে জন্য আমরা কাজ করে যাচ্ছি। বাংলাদেশের তৈরি পোশাক শিল্পের সঙ্গে জড়িত কর্মীদের অবস্থা সম্পর্কে তাদের দেশের ক্রেতারা জানতে চায় বলেও জানান বার্নিকাট।

সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তার সরকারের অবস্থানের প্রশংসা করেন মার্কিন রাষ্ট্রদূত। এ সময় তিনি রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে প্রধানমন্ত্রীর উদ্যোগেরও প্রশংসা করেন।

বঙ্গবন্ধু হত্যার দায়ে অভিযুক্ত রাশেদ চৌধুরীকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানোর বিষয়ে বার্নিকাট বলেন, বিষয়টি আদালতে বিচারাধীন। এটি আদালতের সিদ্ধান্তের ওপর নির্ভরশীল।

বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে স্থলসীমা চুক্তি সম্পাদন ও ছিটমহল সমস্যা সমাধান হওয়ার প্রশংসা করেন বার্নিকাট। বিভিন্ন দেশে দায়িত্ব পালনরত বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীদের দায়িত্ব পালনেও সন্তোষ প্রকাশ করেন তিনি।

এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শান্তিরক্ষার পাশাপাশি বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীদের বিভিন্ন দেশে সামাজিক কাজে সম্পৃক্ত করার বিষয়টি উল্লেখ করেন।

বৈশ্বিক সংঘাত কমাতে বিশ্বব্যাপী অস্ত্র উৎপাদন কমানোর ওপর গুরুত্বারোপ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সাক্ষাৎকালে আরো উপস্থিত ছিলেন- প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব আবুল কালাম আজাদ ও মার্কিন দূতাবাসের উপপ্রধান ডেভিড মিল।