নাগরিক সেবায় সব সরকারি তথ্য উন্মুক্ত রাখতে উদ্যোগ

তথ্যপ্রযুক্তির মাধ্যমে সবার জন্য সরকারি তথ্যের দুয়ার খুলে দিতে উদ্যোগ নিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অ্যাকসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রকল্প। তথ্য উন্মুক্ত রাখার এ উদ্যোগে ওপেন গভর্নমেন্ট ডাটা (ওজিডি) বাস্তবায়ন করছে এটুআই। ইতিমধ্যে এর স্ট্র্যাটেজিক পেপার তৈরির কাজও শুরু হয়েছে। বিভিন্ন প্রয়োজনীয় তথ্য নাগরিকদের কাছে সহজলভ্য করে নাগরিক সেবার উন্নয়ন ও প্রসার, রিসোর্স আদান-প্রদান করার একটি বিশ্বজনীন ধারণা ওজিডি। এটুআই বলছে, ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে নাগরিক সেবা প্রদানের দক্ষতা বাড়াতে হবে। আর এতে ওজিডি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। আর এ ওজিডি সম্পর্কে ধারণা দিতে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নভোথিয়েটারের সম্মেলন কক্ষে রোববার থেকে দেশের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ের শীর্ষ কর্মকর্তাদের নিয়ে তিন দিনব্যাপী কর্মশালা শুরু হয়েছে।
এটুআই ও ইউনাইটেড নেশনস ডিপার্টমেন্ট অব ইকোনমিক অ্যান্ড সোশ্যাল অ্যাফেয়ার্সের (ইউএনডেসা) ডিভিশন ফর পাবলিক অ্যাডমিনিস্ট্রেশন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজমেন্ট (ডিপিএডিএম) যৌথভাবে জাতীয় এ কর্মশালার আয়োজন করেছে। ওপেন গভর্নমেন্ট ডাটা (ওজিডি) সেনসিটাইজেশন, গ্যাপ অ্যাসেসমেন্ট এবং স্ট্র্যাটেজিক প্ল্যানিং শীর্ষক এ কর্মশালার উদ্বে^াধন করেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রী ইয়াফেস ওসমান । প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ সব ক্ষেত্রে স্বচ্ছতা নিশ্চিত করার যে কোনো উদ্যোগকে সমর্থন করে। ইতিমধ্যে জাতীয় তথ্য বাতায়নের মাধ্যমে সরকার জনগণের জন্য তথ্য প্রাপ্তি সহজ করেছে। এটি ওজিডি বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে যুগান্তকারী পদক্ষেপ হিসেবে বিবেচনা করা যায়। কর্মশালায় বলা হয়, সরকার বিভিন্ন প্রকারের তথ্য সংগ্রহের মাধ্যমে বহুমাত্রার ফলাফল তৈরি করে থাকে। এর মধ্যে আদমশুমারি, বৈজ্ঞানিক গবেষণা, স্বাস্থ্য, বাণিজ্য, আবহাওয়াসহ বিভিন্ন বিষয় রয়েছে। ওজিডি বাস্তবায়নের ফলে এসব ফলাফল নাগরিকসহ জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ব্যক্তিদের যে কোনো বিষয়ে নতুন ও স্বচ্ছ ধারণা তৈরিতে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে। এ ছাড়া উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার থাকার ফলে ব্যবসা-বাণিজ্যে বিনিয়োগ এবং নতুন ক্ষেত্র তৈরিতে কার্যকরী ভূমিকা পালন করবে বলে জানান আয়োজকরা। ওজিডি বাস্তবায়নের মাধ্যমে ইউএন ই-ডেভেলপমেন্ট ইনডেক্সের র‌্যাংকিংয়েও তাৎপর্যপূর্ণ অবস্থান অর্জনে বাংলাদেশকে সাহায্য করবে বলে উল্লেখ করে এটুআই। কর্মশালার উদ্বোধনীতে বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের মুখ্যসচিব মো. আবুল কালাম আজাদ, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব (সমন্বয় ও সংস্কার) মো. নজরুল ইসলাম, ইউএনডিপি বাংলাদেশের ডেপুটি কান্ট্রি ডিরেক্টর নিক বেরেস্ফোর্ড, ইউএসএইড বাংলাদেশের অফিস অব ডেমোক্রেসি অ্যান্ড গভর্ননেন্সের ডেপুটি ডিরেক্টর জ্যাসন স্মিথ। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মহাপরিচালক (প্রশাসন) ও এটুআইযের প্রকল্প পরিচালক কবির বিন আনোয়ারের সভাপতিত্বে এ কর্মশালায় স্বাগত বক্তব্য দেন এটুআইয়ের পলিসি অ্যাডভাইজার আনীর চৌধুরী।