বেসরকারি খাতের ঋণপ্রবাহ বাড়ছে

বেসরকারি খাতের ঋণপ্রবাহ একটু একটু করে বাড়ছে। গত জুন শেষে বেসরকারি খাতের ঋণ প্রবৃদ্ধি দাঁড়িয়েছে ১৩.১৯ শতাংশে। ২০১৪ সালের জুন শেষে বেসরকারি খাতের ঋণ প্রবৃদ্ধি ছিল ১২.২৭ শতাংশ।

গত জুন শেষে বেসরকারি খাতে বিতরণ করা ঋণের স্থিতি দাঁড়িয়েছে পাঁচ লাখ ৭৪ হাজার ৫৯৯ কোটি টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ছিল পাঁচ লাখ সাত হাজার ৬৩৯ কোটি টাকা। সে হিসাবে ঋণ বেড়েছে ৬৬ হাজার ৯৬০ কোটি টাকা। বাংলাদেশ ব্যাংকের হালনাগাদ পরিসংখ্যান থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (ডিসিসিআই) সভাপতি হোসেন খালেদ বলেন, ‘এখন সময় বিনিয়োগের। কারণ মুদ্রা বিনিয়ম হারসহ প্রায় সব কিছুই আমাদের অনুকূলে। কেবল অবকাঠামোটা আমাদের অনুকূলে নয়। গ্যাস-বিদ্যুতের সংযোগ পাওয়া যাচ্ছে না। যে কারণে বিনিয়োগকারীদের আস্থা পুরোপুরিভাবে এখনো আসেনি। যেসব কারখানায় গ্যাস-বিদ্যুৎ আছে তারা হয়তো কিছু যন্ত্রপাতি আমদানি করছে, বিনিয়োগ কিছুটা বাড়াতে পারছে। যে কারণে বেসরকারি খাতে ঋণপ্রবাহ কিছুটা বেড়েছে। তবে নতুন করে যারা বিনিয়োগ করতে চায় তারা বিনিয়োগ করতে পারছে না।

দীর্ঘদিন ধরেই বেসরকারি খাতের ঋণ বাড়তির ধারায় ছিল না। ঋণের সুদের হার বেশি এবং গ্যাস-বিদ্যুতের অভাবের কারণে এমনটা হচ্ছিল বলে জানিয়ে আসছিল ব্যবসায়ী ও ব্যাংক খাতসংশ্লিষ্টরা। বর্তমানে ঋণের সুদের হার কিছুটা কমে এসেছে। যে কারণে ঋণের প্রবৃদ্ধিও আগের থেকে বেড়েছে।

বিদায়ী ২০১৪-১৫ অর্থবছরে বেসরকারি খাতে ঋণ প্রবৃদ্ধির ঊর্ধ্বসীমা ধরা হয়েছিল ১৫.৫ শতাংশ। তবে চলতি অর্থবছরের মুদ্রানীতিতে বেসরকারি খাতে ঋণ প্রবৃদ্ধির ঊর্ধ্বসীমা ধরা হয়েছে ১৫ শতাংশ। অর্থবছরের প্রথমার্ধের (জুলাই-ডিসেম্বর) জন্য এই হার ধরা হয়েছে ১৪.৩ শতাংশ।