নীলফামারীর পল্লীতে আলো ছড়াচ্ছেন ৫ যুবক

নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলার কাশিরাম-বেলপুকুর ইউনিয়নের অচিনারডাঙ্গা এলাকার প্রত্যন্ত পল্লীতে শিক্ষার আলো ছড়াচ্ছেন উদ্যমী ক’জন যুবক। স্কলাস্টিক নামে ব্যতিক্রমধর্মী একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে তারা এ কার্যক্রম চালাচ্ছেন। তাদের প্রতিষ্ঠিত বিদ্যালয়ে বর্তমানে দুই শতাধিক শিক্ষার্থী রয়েছে। এখানে পঞ্চম থেকে দশম শ্রেণী পর্যন্ত নামমাত্র বেতনে মানসম্পন্ন শিক্ষা প্রদান করা হচ্ছে।

জানা গেছে, প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে শিক্ষার আলো পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে সৈয়দপুর উপজেলার কাশিরাম-বেলপুকুর ইউনিয়নের অচিনারডাঙ্গা এলাকার শিক্ষিত যুবক রবিউল ইসলাম, নিখিল চন্দ্র পাল, মুজাহিদুল ইসলাম, সাবেত আলী, সবুজ, জাহাঙ্গীর ও রহমত আলী চলতি বছর স্কলাস্টিক নামে ভিন্নধর্মী একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম শুরু করেন। শিক্ষা কার্যক্রম চালানোর জন্য তারা এলাকার পাঁচ শতক জমিতে চারটি ঘর নির্মাণ করেন। শিক্ষা কার্যক্রমে নিজেকে সম্পৃক্ত করার পাশাপাশি নিয়োগ দেন বিষয়ভিত্তিক আরো কিছু শিক্ষক। তাদের ঐকান্তিক চেষ্টায় প্রতিষ্ঠানটির কার্যক্রম সফলতার সঙ্গে এগিয়ে যাচ্ছে। এলাকার অনেক অভিভাবক তাদের ছেলেমেয়েদের এ স্কুলে ভর্তি করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।

স্কলাস্টিকের প্রধান উদ্যোক্তা রবিউল ইসলাম বলেন, আমরা প্রত্যন্ত পল্লীতে (গ্রামে) থাকি। এখানে মানসম্পন্ন কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নেই। গ্রামে থেকেও ভালো ফলাফল করা যায় ও শহরের নামকরা প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে পাল্লা দিতে আমরা এ শিক্ষা কার্যক্রম শুরু করি। বর্তমানে এখানে অধ্যয়নরত ছাত্রছাত্রীর মধ্যে সুস্থ প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে।

আরেক উদ্যোক্তা নিখিল চন্দ্র জানান, নিবিড় পরিচর্যা ও সুষ্ঠু তত্ত্বাবধানের কারণে ছাত্রছাত্রীরা বাড়ির কাজসহ প্রতিদিনের পড়া প্রতিদিনই শিখছে। আগামী বছরের জেএসসি ও এসএসসি পরীক্ষায় এখানকার ছাত্রছাত্রীরা ভালো ফলাফল করবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

সানাউল হক নামের এক অভিভাবক বলেন, আমার ছেলে স্কুলে যেতে চাইত না। কিন্তু এখানে ভর্তি করানোর পর সে নিয়মিত স্কুলে যাচ্ছে। পড়াশোনার প্রতি তার মনোযোগ তৈরি হয়েছে।