প্রধানমন্ত্রীকে স্মার্টকার্ড বিষয়ে অবহিত করলো ইসি

স্মার্টকার্ডে থাকছে তিন স্তরে ২৫টি নিরাপত্তা বৈশিষ্ট্য

নাগরিকদের ব্যাপক আগ্রহের মধ্যে স্মার্টকার্ডের ব্যবহার প্রযুক্তি এবং কারিগরি দিকসহ সার্বিক বিষয় প্রধানমন্ত্রীকে অবহিত করেছে নির্বাচন কমিশন।
 
আজ রোববার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এ বিষয়ে এক বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীকে উন্নত মানের জাতীয় পরিচয় পত্র বা স্মার্টকার্ডের সার্বিক দিক নিয়ে অবহিত করে কমিশন।
 
স্মার্টকার্ড প্রস্তুত এবং বিতরণে ফ্রান্সের একটি সংস্থার সঙ্গে ছয় মাস আগে প্রায় আটশ’ কোটি টাকার চুক্তি হয়। ইতোমধ্যে স্মার্টকার্ডের নমুনা চূড়ান্ত করা এবং প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি স্থাপনের কাজ শেষ হয়েছে।
 
চুক্তি অনুযায়ী ২০১৬ সালের মধ্যে নাগরিকদের হাতে পৌঁছাবে এই কার্ড। স্মার্টকার্ডে তিন স্তরে ২৫ টির মতো নিরাপত্তা বৈশিষ্ট্য এবং আন্তর্জাতিক মানদণ্ড থাকবে। 

স্মার্টকার্ডে থাকছে তিন স্তরে ২৫টি নিরাপত্তা বৈশিষ্ট্য

নতুন প্রযুক্তিতে তৈরি জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) স্মার্টকার্ডে তিন স্তরে ২৫টি নিরাপত্তা বৈশিষ্ট্য থাকবে বলে জানানো হয়েছে। গতকাল রোববার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে স্মার্টকার্ডের প্রস্তুতিকরণ কাজের অগ্রগতি নিয়ে আয়োজিত এক উপস্থাপনায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বিষয়টি অবহিত করে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) এনআইডি নিবন্ধন অনুবিভাগ। এ কার্ডটি ১০ বছরের জন্য টেকসই করে তৈরি হচ্ছে বলে প্রধানমন্ত্রীকে জানানো হয়।
প্রধানমন্ত্রীর প্রেসসচিব ইহসানুল করিম জানান, গতকাল প্রধানমন্ত্রীর কাছে স্মার্টকার্ডের কারিগরি ও নিরাপত্তার দিকগুলো তুলে ধরা হয়েছে। এরই মধ্যে স্মার্টকার্ডের জন্য ৯ কোটির বেশি মানুষের তথ্যভা-ার বা ডেটাবেজ তৈরি করা হয়েছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।
স্মার্ট জাতীয় পরিচয়পত্র তৈরির কাজের অগ্রগতির প্রশংসা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ থেকে মানুষ সুবিধা পাচ্ছে। স্মার্টকার্ড (জাতীয় পরিচয়পত্র) থেকেও এর সুফল পাওয়া যাবে। এ কার্ডের ফলে দুর্নীতি ও অপরাধ কমে যাবে। স্মার্টকার্ড থেকে মানুষ কী ধরনের সুযোগ-সুবিধা পাবে, এ বিষয়ে প্রচারণার ওপর গুরুত্ব দিতে সংশিষ্টদের পরামর্শ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।
জাতীয় পরিচয়পত্র আইন-২০১০ অনুযায়ী এ স্মার্টকার্ড তৈরি করছে নির্বাচন কমিশনের এনআইডি নিবন্ধন অনুবিভাগ।
উপস্থাপনার সময় স্থানীয় সরকার ও পল্লি উন্নয়নমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন, কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তাবিষয়ক উপদেষ্টা মেজর জেনারেল (অব.) তারিক আহমেদ সিদ্দিক, মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া স্মার্ট জাতীয় পরিচয়পত্র প্রকল্পের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সুলতানুজ্জামান মো. সালেহ উদ্দিনসহ নির্বাচন কমিশনের কর্মকর্তারাও ছিলেন।