সাড়া জাগিয়েছে ‘কম্বো’ প্যাকেজ

প্রতিযোগিতাপূর্ণ বাজারে সুদৃঢ় অবস্থান তৈরির লক্ষ্যে সম্প্রতি টেলিটক বাজারে ছেড়েছে ‘কম্বো প্যাকেজ’। গ্রাহকবান্ধব কম্বো পাইওনিয়ার, কম্বো লাইটার, কম্বো স্ট্যান্ডার্ড, কম্বো গসিপ ও কম্বো ম্যাসিভ নামে পাঁচটি কম্বো প্যাকেজ চালুর অল্প সময়ের মধ্যে গ্রাহকদের মধ্যে সাড়া জাগিয়েছে বলে জানান টেলিটকের কর্মকর্তারা।

টেলিটক সূত্রে জানা যায়, এই প্যাকেজে গ্রাহক ১৫২ টাকা রিচার্জের বিনিময়ে পাচ্ছে ২০০ মিনিট টকটাইম (যেকোনো অপারেটরে), ২৫০ এমবি থ্রিজি ডাটা ও ২০০টি এসএমএস (যেকোনো অপারেটরে) এবং যার ব্যবহারের মেয়াদ ১৫ দিন। ২১৯ টাকা রিচার্জে গ্রাহক পাচ্ছে কম্বো লাইটার, যাতে থাকছে ৩০০ মিনিট টকটাইম ও ৪০০টি এসএমএস এবং ৫০০এমবি থ্রিজি ডাটা, যার ব্যবহারের মেয়াদ ৩০ দিন। ৩৫৯ টাকা রিচার্জে গ্রাহক পাচ্ছে কম্বো স্ট্যান্ডার্ড, যাতে থাকছে ৫০০ মিনিট টকটাইম, ৫০০টি এসএমএস এবং ১জিবি থ্রিজি ডাটা, যার ব্যবহারের মেয়াদ ৩০ দিন। ৫০৪ টাকা রিচার্জে গ্রাহক পাচ্ছে কম্বো গসিপ, যাতে থাকছে ৭০০ মিনিট ভয়েস, ৫০০টি এসএমএস ও ১জিবি থ্রিজি ডাটা এবং যার ব্যবহারের মেয়াদ ৩০ দিন। কম্বো ম্যাসিভ নামের প্যাকটি গ্রাহক ৫১৯ টাকায় এক মাসের জন্য অ্যাকটিভ করলে যেকোনো অপারেটরে ব্যবহার উপযোগী ৬০০ মিনিট ভয়েস, ৬০০টি এসএমএস এবং ২ জিবি থ্রিজি ডাটা পেয়ে যাবে। গ্রাহককে উপরোক্ত প্যাকেজগুলো অ্যাকটিভ করতে শুধু নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকা (পাইওনিয়ার-১৫২/লাইটার ২১৯/স্ট্যান্ডাড-৩৫৯/গসিপ-৫০৪/ম্যাসিভ-৫১৯) রিচার্জ করতে হবে। রিচার্জকৃত টাকা কর্তন সাপেক্ষে কম্বো প্যাকটি অ্যাকটিভ হবে। উল্লিখিত টাকার সঙ্গে ভ্যাট ও সম্পূরক শুল্ক অন্তর্ভুক্ত।

এ প্রসঙ্গে ডিজিএম (সেলস অ্যান্ড মার্কেটিং) প্রকৌশলী শাহ জুলফিকার হায়দার বলেন, ‘বর্তমান বিশ্বায়নের যুগে প্রযুক্তিগত উৎকর্ষতা ও সময়োপযোগী সেবার কোনো বিকল্প নেই। তাই মান ও মননের দিকে লক্ষ রেখে গ্রাহকদের সর্বোত্তম সেবা ও চাহিদা পূরণে সদা বদ্ধপরিকর টেলিটক। গ্রাহকবান্ধব হওয়ার কারণে কম্বো সবাই সানন্দে গ্রহণ করছে।’ যেসব গ্রাহক শুধু ভয়েস সেবা নিচ্ছে কিন্তু ডাটা ব্যবহার করছে না তাদের ডাটা ব্যবহারে আগ্রহী করতে এই প্যাকেজ বড় ভূমিকা রাখবে বলে তিনি মনে করেন।