রেমিট্যান্সে শীর্ষে সৌদি আরব

বিদায়ী ২০১৪-১৫ অর্থবছরে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে অবস্থানরত প্রবাসী বাংলাদেশিরা ৯০৭ কোটি ২৪ লাখ ডলারের রেমিট্যান্স দেশে পাঠিয়েছে। এর মধ্যে বরাবরের মতো রেমিট্যান্স পাঠানোর দিক থেকে সৌদি আরব শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে। এক অর্থবছরে সৌদি থেকে ৩৩৪ কোটি ৫৩ লাখ ডলারের রেমিট্যান্স এসেছে।
গতকাল প্রকাশিত বাংলাদেশ ব্যাংকের দেশভিত্তিক রেমিট্যান্স প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।
গত অর্থবছরে বিভিন্ন দেশ থেকে প্রবাসী বাংলাদেশিরা ১ হাজার ৫৩১ কোটি ৭০ লাখ ডলারের রেমিট্যান্স পাঠিয়েছে। মধ্যপ্রাচ্য ছাড়া অন্যান্য দেশ থেকে ৬২৪ কোটি ৪৫ লাখ ডলারের সমপরিমাণ রেমিট্যান্স এসেছে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রতিবেদন অনুযায়ী, আলোচ্য সময়ে সৌদির পরই দ্বিতীয় অবস্থানে সংযুক্ত আরব আমিরাত (ইউএই)। এ দেশ থেকে ২৮৩ কোটি ডলার রেমিট্যান্স এসেছে। এরপরই রয়েছে কুয়েত, ওমান, বাহরাইন ও কাতারের স্থান। এ সময় কুয়েত ১০৮ কোটি, ওমান ৯২ কোটি, বাইরাইন ৫৬ কোটি ও কাতার ৩২ কোটি ডলারের রেমিট্যান্স পাঠিয়েছে।
অন্যদিকে একই সময়ে অন্য দেশগুলোর মধ্যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে রেমিট্যান্স এসেছে বেশি। তালিকায় এরপর রয়েছে যুক্তরাজ্য, মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর ও ইতালি।
গত অর্থবছরে যুক্তরাষ্ট্র থেকে রেমিট্যান্স এসেছে ২৩৮ কোটি ২ লাখ ডলার। একই সময়ে যুক্তরাজ্য থেকে এসেছে ৮১ কোটি ২৪ লাখ ডলার। এছাড়া মালয়েশিয়া থেকে ১৩৮ কোটি ১৬ লাখ, সিঙ্গাপুর থেকে ৪৪ কোটি ৩৫ লাখ, ইতালি থেকে ২৬ কোটি ২ লাখ ও অন্যান্য দেশ থেকে ৭৮ কোটি ৭৪ লাখ ডলার রেমিট্যান্স এসেছে।
এদিকে প্রবাসী আয় ধরে রাখার জন্য শীর্ষ রেমিট্যান্স প্রেরণকারীদের পুরস্কার দেয়ার উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এ লক্ষ্যে সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স প্রেরণকারী ১০ জন প্রবাসী বাংলাদেশিকে পুরস্কার দেবে বাংলাদেশ ব্যাংক।
কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কর্মকর্তারা বলছেন, প্রবাসীদের পাঠানো বৈদেশিক মুদ্রার কারণে রিজার্ভ শক্তিশালী হচ্ছে। যে কারণে বাংলাদেশ বিদেশিদের সামনে মাথা উঁচু করে কথা বলে। অনেক ক্ষেত্রে বিদেশি দাতাদের অনেক প্রস্তাব গ্রহণযোগ্য না হলে বাংলাদেশ তা ফিরিয়ে দিচ্ছে। এজন্য দেশভিত্তিক ও মাসভিত্তিক যারা রেমিট্যান্স পাঠাচ্ছে তাদের মধ্যে সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স প্রেরণকারী দশ জনকে বাংলাদেশ ব্যাংক পুরস্কৃত করবে।