মূসক সম্মাননা পেল ১১৯ ব্যক্তি-প্রতিষ্ঠান

শেরে বাংলানগরে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে জাতীয় পর্যায়ে সর্বোচ্চ মূসকদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোকে সম্মাননা দেওয়া হয়। এনবিআরের সদস্য (শুল্ক নীতি) ফরিদ উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা মসিউর রহমান, এফবিসিসিআই সভাপতি আবদুল মাতলুব আহমাদ প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে অর্থমন্ত্রী বলেন, দেশে মাত্র ৬০ হাজার ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান মূসক দেয়। বাংলাদেশে কি মাত্র ৬০ হাজার প্রতিষ্ঠান মূসক প্রদানের উপযুক্ত? আমার তো মনে হয় তিন থেকে ছয় লাখ প্রতিষ্ঠান মূসক প্রদানের উপযুক্ত, কিন্তু তারা কর প্রদান করে না।’

মুহিত বলেন, আগামী অর্থবছরে রাজস্ব আদায়ের যে এক লাখ ৭৬ হাজার কোটি টাকার লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে, তার মধ্যে আয়কর ও মূসক মিলিয়ে এক লাখ ৩০ হাজার কোটি টাকা রাজস্ব আদায় করতে হবে।

মূসকের সঙ্গে আয়করদাতাদের সংখ্যা নিয়েও নিজের অসন্তোষ জানিয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের ১৫ কোটি মানুষের দেশে প্রায় চার কোটি লোক আয়কর প্রদানের উপযুক্ত হলেও মাত্র ১১ লাখ লোকে কর প্রদান করেন।’ আমার মতে, ‘মানুষের উন্নয়নের জন্য, সুযোগ-সুবিধার জন্য ও একটু ভালোভাবে সবার বাঁচার জন্য কর প্রদানে যারা উপযুক্ত তাদের সবার এগিয়ে আসা উচিত।’

মূসক বা ভ্যাট দিতে সবার প্রতি আহ্বান জানিয়ে মুহিত বলেন, ‘মূসক একটি ভালো কর, ন্যায় কর। আপনারা মূসক কর প্রদান করে রাজস্ব আদায়ে আপনারা আমাদের সহযোগিতা করুন।’ মূল্য সংযোজন কর ও সম্পূরক শুল্ক আইন আগামী বছর থেকে পুরোপুরি কার্যকর হবে বলেও জানান তিনি।

বিশেষ অতিথি অর্থ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও সাবেক খাদ্যমন্ত্রী আবদুর রাজ্জাকও সামর্থ্যবানদের কর না দেওয়া নিয়ে অসন্তোষ জানান।

অনুষ্ঠানে সেরা মূসকদাতা হিসেবে জাতীয় ও জেলা পর্যায়ের ১১৯ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে পুরস্কৃত করা হয়। ২০১৩-১৪ অর্থবছরের সেরা ভ্যাটদাতা হিসেবে জাতীয় পর্যায়ে ৯টি প্রতিষ্ঠান এবং জেলা পর্যায়ের ১১০ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিদের হাতে সম্মাননা ক্রেস্ট তুলে দেন অর্থমন্ত্রী।

যেসব প্রতিষ্ঠান সম্মাননা পেয়েছে : ঢাকা জেলার প্রমি এগ্রো ফুডস (উৎপাদন), ফাইবার অ্যাট হোম (সেবা) ও পান্না ডিস্ট্রিবিউশন লিমিটেড (ব্যবসা)। মুন্সীগঞ্জ জেলায় ভাগ্যকুল নেটওয়ার্ক (সেবা) ও সজীব এন্টারপ্রাইজ (ব্যবসা)। নরসিংদী জেলায় প্রাণ ডেইরি (উৎপাদন) ও ড্রিম হলিডে (সেবা)। নারায়ণগঞ্জ জেলায় অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজ (উৎপাদন), মেঘনা এনার্জি (সেবা) ও আরএইচ ট্রেডিং (ব্যবসা)। গাজীপুরে পারফেট্টি ভ্যান মেলে বাংলাদেশ ও লিংকার্স অটোমোবাইল, ময়মনসিংহে তাকওয়া মার্কেটিং পনটওয়ার্ক, মানিকগঞ্জে উডমার্ক ফার্নিচার ও পেন্টা ট্রেডিং, টাঙ্গাইলে নর্থ বেঙ্গল সাইকেল, এলেঙ্গা রিসোর্ট ও জুপিটার এন্টারপ্রাইজ; জামালপুরে মা মিষ্টান্ন ভাণ্ডার (বুড়িমা), নেত্রকোনায় বাজাজ উৎসব, শেরপুরে বাজাজ কর্নার, কিশোরগঞ্জে এমএম খান ফুডস।

এ ছাড়া তালিকায় রয়েছে চট্টগ্রামে জেনসন অ্যান্ড নিকলসন, কেসিজে অ্যান্ড অ্যাসোসিয়েটেড ও ইন্টারফোল্ড ট্রেডিং, কুমিল্লায় মাতৃ ভাণ্ডার, এশিয়ান পেইন্টস ও পিইবি স্টিল অ্যালায়েন্স, ফেনীতে স্টার লাইন ফুড প্রডাক্ট, স্টার লাইন এসি বাস ও হাজি এন্টারপ্রাইজ, নোয়াখালীতে ফরিদ ইন্ডাস্ট্রিজ ও বিশ্বনাথ কর্মকার অ্যান্ড আদার্স, চাঁদপুরে ওয়ান মিনিট, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আশুগঞ্জ ফার্টিলাইজার অ্যান্ড কেমিক্যাল কম্পানি ও আল হেলাল হোটেল, সিলেটে সানটেক এনার্জি, পাঁচ ভাই রেস্টুরেন্ট ও আড়ং (ব্র্যাক), হবিগঞ্জে স্টার সিরামিকস, হোটেল আমাদ ও রহমান এন্টারপ্রাইজ, মৌলভীবাজারে ভাড়াউড়া চা বাগান ও সাউদানী অটোমোবাইল, সুনামগঞ্জে নুর লাইম ওয়ার্কস, ফুলকলি ও আবুল লেইছ অ্যান্ড সন্স, খুলনায় আবদুল্লা ব্যাটারি, সিটি ইন ও এশিয়ান পেইন্টস, বাগেরহাটে দুবাই বাংলাদেশ সিমেন্ট মিলস ও হোটেল আল আমিন, সাতক্ষীরায় সুন্দরবন টেক্সাইল মিলস, ভাগ্যকুল মিষ্টান্ন ভাণ্ডার ও আরকে ট্রেডিং, বরিশালে পদ্মা বোয়িং, বেস্ট ফুড গার্ডেন ও মেসার্স আবদুল মতিন মৃধা, পিরোজপুরে আকন ট্রেডিং, ঝালকাঠিতে আজিজ গাজী, শরীয়তপুরে এশিয়া বিডি ও বাজাজ সেন্টার, মাদারীপুরে চন্দ্রা রেস্ট হাউস ও সিগমা ট্রেডার্স, বরগুনায় হক কেমিক্যাল ওয়ার্কস ও হুমায়ুন স্টোর, ভোলায় এ রহমান অ্যান্ড সন্স, পটুয়াখালীতে পানজা বিড়ি ও সিকদার অটোস।

তালিকায় আরো রয়েছে রাজশাহীতে মুসলিম আয়ুর্বেদিক, রাজশাহী মিষ্টান্ন ভাণ্ডার ও প্রাইড শাড়ি, বগুড়ায় পিসিএল প্লাস্টিক, এশিয়া সুইট মিট ও এশিয়ান পেইন্টস, পাবনায় স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস ও লক্ষ্মী মিষ্টান্ন ভাণ্ডার, সিরাজগঞ্জে বাংলাদেশ দুগ্ধ উৎপাদনকারী সমবায় ইউনিয়ন লিমিটেড ও আবদুল হামিদ ভুঁইয়া, নওগাঁয় নিউ ব্রাদার্স বিস্কুট, নওগাঁ মিষ্টান্ন ভাণ্ডার ও মেঘলা এন্টারপ্রাইজ, জয়পুরহাটে শর্মা মিষ্টান্ন ভাণ্ডার, জয়পুরহাট সুগার মিল ও হাসান ট্রেডিং, চাঁপাইনবাবগঞ্জে ঈগলু ফুডস, আলাউদ্দিন হোটেল অ্যান্ড রেস্টুরেন্ট ও অ্যানিমোন স্টোর, নাটোরে আনন্দময়ী স্টেইনলেস স্টিল ও নাটোর টাউন প্রেস, রংপুরে প্রাইম পুষ্টি, নীলফামারীতে আকিজ বিড়ি ফ্যাক্টরি, ঠাকুরগাঁওয়ে লায়ন সোপ ফ্যাক্টরি, গাওসিয়া হোটেল অ্যান্ড রেস্টুরেন্ট ও এসবি এন্টারপ্রাইজ, লালমনিরহাটে আকিজ বিড়ি ফ্যাক্টরি, পঞ্চগড়ে স্মরণিকা এন্টারপ্রাইজ, দিনাজপুরে মেসার্স পাবনা সুইটস, গাইবান্ধায় নিবারণ চন্দ্র সাহা, যশোরে ওরিয়েন্টাল অয়েল ও হাসান ইন্টারন্যাশনাল, ফরিদপুরে তাজ ইন্টারন্যাশনাল, চুয়াডাঙ্গায় খান বাজাজ স্টোর, গোপালগঞ্জে টেকেরহাট ট্রেডার্স, রাজবাড়ীতে বদরুন্নেসা কেমিক্যাল এবং নড়াইলে শাহাবাজ ট্যুরিজম।

সর্বোচ্চ ভ্যাটদাতার সম্মাননা পেল প্রাণ ডেইরি : ২০১৩-১৪ অর্থবছরে জেলা পর্যায়ে উৎপাদন খাতে সর্বোচ্চ মূল্য সংযোজন কর বা ভ্যাট প্রদানকারীর পুরস্কার পেয়েছে প্রাণ ডেইরি লিমিটেড। গতকাল রবিবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের পরিচালক (হিসাব) চৌধুরী আতিউর রসুলের হাতে সর্বোচ্চ ভ্যাটদাতার সম্মাননা পদক তুলে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সদস্য ফরিদ উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, প্রধানমন্ত্রীর অর্থ উপদেষ্টা ড. মসিউর রহমান, অর্থ মন্ত্রণালয়সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি আবদুর রাজ্জাক ও এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি আবদুল মাতলুব আহমাদ।

উৎপাদন, সেবা ও ব্যবসায়-এই তিন ক্যাটাগরিতে জাতীয় ও জেলা পর্যায়ে সর্বোচ্চ মূল্য সংযোজন কর প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানকে ক্রেস্ট ও সনদপত্র প্রদান করা হয়। সর্বোচ্চ ভ্যাট প্রদানকারী হিসেবে নির্বাচিত প্রতিষ্ঠানের নাম-ঠিকানা সরকারি গেজেট বিজ্ঞপ্তিতে প্রকাশ করা হয়।