৩২ ভাষায় গাইলেন আবিদা সুলতানা

বিশিষ্ট সঙ্গীতশিল্পী আবিদা সুলতানা বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ৩২টি ভাষায় গান গেয়ে অনন্য এক রেকর্ড গড়েছেন। সর্বশেষ চলতি মাসে তিনি রুশ ভাষার একটি গানে কণ্ঠ দেন। তা ছাড়া বাংলা, হিন্দি, ইংরেজির পাশাপাশি তিনি উর্দু, বেলুচ, তামিল, গুজরাটি, চায়নিজ, জাপানি, আরবি, ফারসি, পশতু, মালয় ভাষায়ও একাধিক গান করেছেন।

বিশিষ্ট সঙ্গীতশিল্পী আবিদা সুলতানা বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ৩২টি ভাষায় গান গেয়ে অনন্য এক রেকর্ড গড়েছেন। সর্বশেষ চলতি মাসে তিনি রুশ ভাষার একটি গানে কণ্ঠ দেন। তা ছাড়া বাংলা, হিন্দি, ইংরেজির পাশাপাশি তিনি উর্দু, বেলুচ, তামিল, গুজরাটি, চায়নিজ, জাপানি, আরবি, ফারসি, পশতু, মালয় ভাষায়ও একাধিক গান করেছেন। এ প্রসঙ্গে আবিদা সুলতানা বলেন, ‘আমি গানের সুবাদে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ ভ্রমণ করেছি। প্রবাসী বাংলাদেশিদের পাশাপাশি সেসব দেশের নাগরিকরাও আমার গানে আকৃষ্ট হয়েছেন। যার ফলে আমার মনে হয়েছে, ওই সব দেশের ভাষায় গান করলে সঙ্গীতপ্রেমীরা আরো বেশি আনন্দ পাবেন। তাই আমি বিভিন্ন দেশ ও ভাষার জনপ্রিয় শিল্পীদের গানের অ্যালবাম সংগ্রহ করে, তা নিজের আয়ত্তে এনেছি। পরে বিদেশে গিয়ে বাংলার পাশাপাশি ওই সব ভাষায়ও গান করেছি। এসব গান গেয়ে আমি ইতোমধ্যে বিদেশিদের কাছ থেকে ব্যাপক সম্মান ও প্রশংসা অর্জন করেছি। ৩২ ভাষায় গান করার পরও আমি এখনো বিদেশি গানের অ্যালবাম সংগ্রহ করছি।’
আসন্ন ঈদুল ফিতরে আবিদা সুলতানা একাধিক চ্যানেলের সঙ্গীতবিষয়ক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করতে যাচ্ছেন। ইতোমধ্যে তিনি বিটিভির তিনটি ও চ্যানেল ৭১-এর একটি অনুষ্ঠানের শুটিং সম্পন্ন করেছেন বলে জানিয়েছেন। এর মধ্যে বিটিভির একটি অনুষ্ঠানে তিনি তিনটি ছবির গানের পাশাপাশি রুশ ভাষার গানও পরিবেশন করেন। এদিকে, সম্প্রতি আবিদা সুলতানা গীতিকার হিসেবেও আত্মপ্রকাশ করেছেন। তার পরবর্তী অ্যালবামের জন্য দুটি গান লিখেছেন বলে জানিয়েছেন। চলতি বছরই অ্যালবামটি প্রকাশ হওয়ার কথা রয়েছে।
আশির দশকের দিকে আবিদা সুলতানা গান গাওয়া শুরু করেন। তার দীর্ঘ ক্যারিয়ারে ১২টি একক অ্যালবাম প্রকাশিত হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে_ ‘ছুঁয়ো না’, ‘ট্রেন ছাড়িয়া যায়’, ‘অন্তরে বৈরাগী’, ‘হৃদয় আমার নাচে রে’, ‘রঙিলা পাখিরে’ প্রভৃতি। তিনি চলচ্চিত্রে প্লেব্যাক করেও ব্যাপক শ্রোতাপ্রিয়তা অর্জন করেছেন। সুরকার ও সঙ্গীত পরিচালক ইউসুফ আলীর হাত ধরে তার প্লেব্যাকে অভিষেক ঘটে। তার প্লেব্যাককৃত উল্লেখযোগ্য ছবিগুলোর মধ্যে রয়েছে ‘নিমাই সন্ন্যাসী’, ‘ইয়ে করে বিয়ে, ‘আবার তোরা মানুষ হ’, ‘ঝড়ের পাখি’, ‘আলো তুমি আলেয়া’, ‘সীমানা পেরিয়ে’ প্রভৃতি।