ভারতে উচ্চগতির ইন্টারনেট রপ্তানি শুরু ১০ এপ্রিল

বাংলাদেশের উদ্বৃত্ত ইন্টারনেট ব্যান্ডউইডথ ভারতে রপ্তানি শুরু হবে আগামী ১০ জুলাই। ভারত সঞ্চর নিগম লিমিটেডের (ভিএসএনএল) উত্তর-পূর্বাঞ্চল সার্কেলের চিফ জেনারেল ম্যানেজার ডিপি সিংয়ের বরাত দিয়ে গতকাল সোমবার ভারতের গণমাধ্যম ইন্ডিয়া টাইমসের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কক্সবাজারের একটি টেলিকম ক্যাবল সংস্থার সঙ্গে আগরতলার একটি অপটিক্যাল ফাইবার ক্যাবল যুক্ত করে বাংলাদেশ থেকে ভারতে ইন্টারনেট ব্যান্ডউইডথ রপ্তানি হবে। বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবল কোম্পানি লিমিটেড থেকে প্রতি সেকেন্ডে ১০ গিগাবাইট ব্যান্ডউইডথ ইন্টারনেট দেয়া হবে ভারতকে। এই সংযুক্তির মাধ্যমে আগামী ৬ মাসের মধ্যে উত্তর-পূর্বের রাজ্যের মানুষরা উচ্চগতির ইন্টারনেট পরিষেবার আওতায় আসবে। গত ৫ জুন এই বিষয়ে একটি চুক্তি সই করে বাংলাদেশ ও ভারত। ডিপি সিং বলেন, অরুণাচল প্রদেশ, আসাম, মেঘালয়, ত্রিপুরার টেলিকম যোগাযোগের উন্নতি ও এই পরিষেবার মান বাড়াতে ৫ হাজার ৩৩৬ কোটি রুপি বরাদ্দ দিয়েছে ভারতের টেলিকম মন্ত্রণালয়।

বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবল কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মনোয়ার হোসেন জানান, এই ব্যান্ডউইডথের দাম সেকেন্ডে প্রতি মেগাবিটের (এমবিপিএস) জন্য ১০ ডলার (প্রায় ৭৯০ টাকা) নির্ধারণ করা হয়েছে। প্রতি তিন মাসের টাকা অগ্রিম প্রদান করবে ভারতীয় সংস্থা ভিএসএনএল। অর্থাৎ এই খাতে প্রতিবছর ৯ দশমিক ৬ কোটি টাকা আয় করবে বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবল কোম্পানি। তিনি আরো জানান, সাবমেরিন ক্যাবল কোম্পানির বর্তমানে মোট ক্ষমতা প্রতি সেকেন্ডে ২০০ গিগাবাইট (জিবিপিএস), যার মধ্যে ৩৩ জিবিপিএস দেশে ব্যবহৃত হয়। আগামী ১৫ বছরের মধ্যে এই ক্যাবলের আয়ু শেষ হয়ে যাবে। তাই উদ্বৃত্ত ব্যান্ডউইডথ রপ্তানির উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।