মানব উন্নয়ন সূচকে এগিয়ে বাংলাদেশ

নেপাল ও পাকিস্তানকে পেছনে ফেলে মধ্য মানব উন্নয়ন তালিকায় স্থান পেয়েছে বাংলাদেশ। অক্সফোর্ড পোভার্টি অ্যান্ড হিউম্যান ডেভেলপমেন্ট ইনিশিয়েটিভ প্রকাশিত মালটিডাইমেনশন পোভার্টি ইনডেক্স (এমপিআই) তালিকায় নেপাল ও পাকিস্তান রয়েছে নিম্ন মানব উন্নয়ন তালিকায়। ২০১৪ সালের ওপর জাতিসংঘ মানব উন্নয়ন কর্মসূচির (ইউএনডিপি) অধীনে এ তালিকা প্রকাশ করা হয়। ওই তালিকায় উন্নয়নশীল ১০১টি দেশের দারিদ্র্য নিয়ে পর্যালোচনা করা হয়। এতে অতি উচ্চ মানব উন্নয়নের তালিকায় অর্থাৎ এক নম্বর অবস্থানে রয়েছে নরওয়ে। দুই নম্বরে অস্ট্রেলিয়া। তিন নম্বরে সুইজারল্যান্ড। বাংলাদেশের অবস্থান ওই তালিকায় ১৫২তে। নেপালের অবস্থান ১৫৬, পাকিস্তান ১৫৭ ও ভারত রয়েছে ১৪৫ নম্বরে। উপার্জনভিত্তিক দারিদ্র্য পরিমাপ করা হয় এমপিআইতে। এতে মানুষ যে বহুমুখী বঞ্চনার শিকার হচ্ছে তার প্রতিফলন ঘটে। গ্লোবাল এমপিআইয়ের রয়েছে তিনটি মাত্রা ও ১০টি সূচক। এরই ভিত্তিতে ওই স্থান নির্ধারণ করা হয়। প্রতিটি মাত্রা বা ডাইমেনশনকে সমান করে দেখা হয়েছে। প্রতিটি মাত্রায় প্রতিটি সূচককে সমান করে দেখা হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও জীবনমান। নির্ধারিত সূচকের কমপক্ষে এক তৃতীয়াংশ থেকে যদি কেউ বঞ্চিত হন তাহলে তাকে বহুমাত্রিক দরিদ্র বা মালটিডাইমেনশনাল পুওর (এমপিআই পুওর) হিসেবে চিহ্নিত করা হয়। অন্য কথায় শতকরা ৩৩ দশমিক ৩৩ ভাগকে এর আওতায় নেয়া হয়। দারিদ্র্য বা মাথাপিছু হারের ওপর ভিত্তি করে মোট জনসংখ্যার মধে এমপিআইয়ের অনুপাত নির্ধারণ করা হয়।