জি টু জি পদ্ধতিতে মালয়েশিয়ায় ৫ লাখ কর্মসংস্থান

বাজেট অধিবেশনে বেশ কিছু আশার বাণী শোনালেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। কর্মসংস্থানের জন্য দেশে বিভিন্ন সম্ভাবনার কথা জানান তিনি। পাশপাশি বিদেশেও কর্মস্থানের সুযোগ বৃদ্ধির আশা প্রকাশ করে বলেন, জি টু জি পদ্ধতিতে আগামী পাঁচ বছরে মালয়েশিয়ায় প্রায় ৫ লাখ বাংলাদেশির কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা যাবে।
তিনি বলেন, জনশক্তি রফতানি বৃদ্ধির জন্য কূটনৈতিক তৎপরতা বৃদ্ধির পাশাপাশি অভিবাসী শ্রমিকদের দক্ষতা উন্নয়নে প্রশিক্ষণ এবং নানামুখী কার্যক্রম পরিচালনা করছি। জি টু জি পদ্ধতির মাধ্যমে মালয়েশিয়ায় শ্রমিক রফতানি শুরু হয়েছে। তবে এর সম্প্রসারণে ব্যক্তিখাতের সহায়তা লাগবে।
মুহিত আরো বলেন, “আমি আশা করি, এর মাধ্যমে আগামী ৫ বছরে মালয়েশিয়ায় প্রায় ৫ লাখ কর্মীর কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা যাবে। এ ছাড়া সৌদি আরবে শ্রমিক শুরুর পরিপ্রেক্ষিতে অভিবাসী জনশক্তির সংখ্যা বাড়বে। অভিবাসন প্রক্রিয়ায় সুশাসন প্রতিষ্ঠার লক্ষে ইতোমধ্যে বৈদেশিক কর্মসংস্থান ও অভিবাসী আইন প্রণয়ন করা হয়েছে।”
এ ছাড়া শ্রমবাজার সম্প্রসারণ, দক্ষতা উন্নয়ন, নিরাপদ অভিবাসন এবং অভিবাসীদের সুরক্ষা ও কল্যাণ নিশ্চিত করার লক্ষ্যে বৈদেশিক কর্মসংস্থান নীতি সময়োপযোগী করার কাজ চলছে বলেও জানান মন্ত্রী। তবে বাজেট আলোচনার কোনস্থানে সাগরে ভাসমান বাংলাদেশিদের প্রসঙ্গে কথা বলেননি অর্থমন্ত্রী।