৬৫ বছরোর্ধ্ব মুক্তিযোদ্ধাদের মাসিক ভাতা ১০ হাজার টাকা

৬৫ বছর ঊর্ধ্ব মুক্তিযোদ্ধাদের মাসিক ভাতা ৫ হাজার থেকে বাড়িয়ে ১০ হাজার টাকায় নির্ধারণের প্রস্তাব করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। গতকাল জাতীয় সংসদে বাজেট বক্তৃতায় এ প্রস্তাব রাখেন তিনি।

আবদুল মুহিত বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারী সব বীর মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের পরিবারের কল্যাণ ও পুনর্বাসনের লক্ষ্যে আমরা নানামুখী কার্যক্রম পরিচালনা করছি। উল্লেখযোগ্য কার্যক্রমগুলোর মধ্যে সম্মানি ভাতার হার বৃদ্ধি, চিকিৎসা ও রেশন প্রদান, সরকারি চাকরি ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তির ক্ষেত্রে মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তান ও নাতি-নাতনিদের জন্য কোটা সংরক্ষণ, মুক্তিযোদ্ধাভিত্তিক সংগঠনসমূহের জন্য মঞ্জুরি, খেতাবপ্রাপ্ত ও যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের ভিআইপি মর্যাদা প্রদান ইত্যাদি। ভূমিহীন ও অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য বাসস্থান নির্মাণের কাজ চলছে। প্রায় সব জেলা-উপজেলায় তৈরি করা

হচ্ছে মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেঙ্। মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি সংরক্ষণের জন্য ইতোমধ্যে স্থাপন করা হয়েছে ৩২টি স্মৃতিস্তম্ভ, চলমান আছে আরও ২৮টির কাজ। বধ্যভূমি ও গণকবরসমূহ সংরক্ষণ এবং উন্নয়নের জন্য প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে। তরুণ প্রজন্মের মধ্যে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিস্তারে বিভিন্ন স্থানে নির্মাণ করা হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর এবং পাঠাগার।

অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘আমি আনন্দের সঙ্গে জানাচ্ছি যে, যেসব মুক্তিযোদ্ধা ৬৫ বছর অতিক্রম করেছেন তাদের সবার মাসিক ভাতা ৫ হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে ১০ হাজার টাকায় নির্ধারণ করার প্রস্তাব করেছি।’