ক্ষমতাধর নারীদের তালিকায় শেখ হাসিনা

ফোর্বস ম্যাগাজিনের করা এ বছর বিশ্বের ক্ষমতাধর ১০০ নারীর তালিকায় আছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মঙ্গলবার প্রকাশিত ওই তালিকায় ৫৯তম অবস্থানে আছেন তিনি। তাদের চোখে বিশ্বের শীর্ষ ক্ষমতাধর নারী জার্মানির চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেল।

এরপরেই আছেন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিনটন। মাইক্রোসফটের মালিক বিল গেইটসের স্ত্রী মেলিন্ডা গেইটস আছেন তৃতীয় অবস্থানে।

শীর্ষ দশের মধ্যে আইএমএফের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ক্রিস্টিনা লগার্ড আছেন ষষ্ঠ স্থানে। তার পরেই ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট দিলমা রৌসেফের অবস্থান। যুক্তরাষ্ট্রের ফার্স্ট লেডি মিশেল ওবামার অবস্থান দশম।

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সম্পর্কে ফোর্বস বলেছে, ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি ‘সংঘাতপূর্ণ ও সন্দেহজনক কম’ ভোটের নির্বাচনের মধ্য দিয়ে টানা দ্বিতীয় মেয়াদে বাংলাদেশের  প্রধানমন্ত্রী হন শেখ হাসিনা। এর আগে ১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল এবং ২০০৯ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত ক্ষমতায় ছিলেন তিনি। জাতিসংঘের আপত্তি সত্ত্বেও ২০১৩ সালের ডিসেম্বরে একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধী আবদুল কাদের মোল্লার ফাঁসির রায় কার্যকর করে হাসিনার সরকার। ১৯৮১ সাল থেকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভানেত্রী তিনি এবং তার বাবা শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি।

এই তালিকায় স্থান পাওয়াদের মধ্যে সবচেয়ে কম বয়সী হলেন যুক্তরাষ্ট্রের গায়িকা টেইলর সুইফট।  ২৫ বছর বয়সী এই গায়িকা আছেন ৬৪তম স্থানে।

সবচেয়ে বেশি বয়সী নারী হিসেবে তালিকায় স্থান করে নিয়েছেন যুক্তরাজ্যের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ। ৮৯ বছর বয়সী রানির অবস্থান ৪১তম।

বিনোদন জগতের সেলিব্রেটিদের মধ্যে সবার উপরে আছেন অপরাহ উইনফ্রে (১২তম), তারপরে শাকিরা, এঞ্জেলিনা জোলিও আছেন।

ভারতের চারজন এ তালিকায় স্থান করে নিলেও তাদের মধ্যে রাজনীতিক কেউ নেই।

স্টেট ব্যাংক অফ ইন্ডিয়ার ব্যবস্থাপনা পরিচালক অরুন্ধতি ভট্টাচার্য আছেন ৩০তম অবস্থানে, আইসিআইসিআই ব্যাংকের সিইও চান্দা কোচার আছেন ৩৫ অবস্থানে, বায়োকনের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারপারসন কিরন মজুমদার-শ ৮৫তম অবস্থানে এবং হিন্দুস্তান টাইমসসহ বেশ কয়েকটি সংবাদমাধ্যম পরিচালনাকারী গ্রুপ এইচটি মিডিয়ার চেয়ারপারসন শোভনা ভারতিয়া আছেন ৯৩তম স্থানে।