বাংলাদেশ অনুর্ধ-১৯ ক্রিকেট দলের সিরিজ জয়

দক্ষিণ আফ্রিকা অনুর্ধ-১৯ দলের বিপক্ষে পঞ্চম ওয়ানডেতে আট রানের জয় পেয়েছে বাংলাদেশ অনুর্ধ-১৯ ক্রিকেট দল। এই ম্যাচ জয়ের ফলে দুই ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ জয় নিশ্চিত করলো টাইগার যুবারা।চট্রগ্রামের জহুর আহমেদ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে প্রথমে ব্যাট করে জুনিয়র টাইগাররা নয় উইকেট হারিয়ে ২৫৮ রানের চ্যালেঞ্জ ছুড়েঁ দেন প্রোটিয়াদের। জবাবে নির্ধারিত ওভার শেষে নয় উইকেট হারিয়ে ২৫৯ রান তুলতে সমর্থ হয় প্রোটিয়া যুবারা। পরে ব্যাট করতে নেমে কোন রান না করতেই প্রথম উইকেট হারায় প্রোটিয়ারা। মেহেদি হাসানের বলে সরাসরি বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফেরত যান রায়ন রিকেলটন। তবে দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে ১০৮ রানের জুটি গড়ে টাইগারদের চাপের মুখে ফেলেন রিভাল্দো মুনস্যামি ও উইয়ান মুল্ডার। দুজনেই তুলে নেন হাফ সেঞ্চুরি। কিন্তু ৫০ রান করা মুল্ডারকে সরাসরি বোল্ড করে জুটি ভাঙেন সালেহ আহমেদ। পরে নাজমুল হাসান শান্তর বলে এলবিডব্লিউ হয়ে ৬৩ রান করে প্যাভিলিয়নে পথে হাঁটেন মুনস্যামি।পরবর্তীতে টনি ডি জোরজি ও ড্যায়ান গালিয়েম আবারো প্রতিরোধ করার চেষ্টা করেন। তবে জোরজি ৪১ রান করে মোহাম্মদ শাফিউদ্দিনের বলে বোল্ড হলে ফাঁটল ধরে সফরকারীদের ইনিংসে। টাইগার বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে দলটি। বাংলাদেশী বোলারদের মধ্যে ছয় ওভারে ২৭ রানের বিনিময় পাঁচ উইকেট পান শাফিউদ্দিন। এর আগে টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ওভার শেষে নয় উইকেট হারিয়ে ২৫৭ রান তোলে টাইগার তরুণ ক্রিকেটাররা। ওপেনিংয়ে সাইফ হাসান ও পিনাক ঘোসের ৪৯ রানই মূলত দলের ভালো একটি সংগ্রহের ইঙ্গিত দেয়। দলীয় সর্বোচ্চ রান করা পিনাকের ব্যাট থেকে আসে ৭৬ রান। এছাড়া দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৬৩ রান করেন অলরাউন্ডার মেহেদি। ওপেনার সাইফ করেন ৩৩ রান। দ.আফ্রিকান বোলারদের মধ্যে নয় ওভারে ৫৮ রানের বিনিময় ছয়টি উইকেট নিয়েছেন জিয়াদ অব্রাহামস।ম্যাচ সেরা হয়েছেন বাংলাদেশের হয়ে পাঁচ উইকেট পাওয়া শাফিউদ্দিন। সাত ম্যাচ সিরিজে টাইগাররা ৪-১ ব্যবধানে এগিয়ে সিরিজ নিশ্চিত করেছে। আগামী ২১ এপ্রিল একই মাঠে দু’দলের ষষ্ঠ ওয়ানডে ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে।