জাতীয় গ্রিডে ১৫৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ

নির্ধারিত সময়ের আগেই ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের আরও ১৫৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ জাতীয় গ্রিডে বাণিজ্যিকভাবে যোগ হচ্ছে। এই নিয়ে কেন্দ্রটি থেকে বিদ্যমান ৭২৫ মেগাওয়াটসহ ৮৮০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ জাতীয় গ্রিডে যোগ হচ্ছে। মঙ্গলবার সকাল থেকে জাতীয় গ্রিডে এ ১৫৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ যোগ হচ্ছে। আশুগঞ্জ বিদ্যুৎকেন্দ্র এলাকায় স্থাপন করা নতুন ২২৫ মেগাওয়াট কম্বাইন্ড সাইকেল পাওয়ার প্ল্যান্ট উৎপাদনে আসার নির্ধারিত সময়ের কিছুদিন আগেই জাতীয় গ্রিডে বাণিজ্যিকভাবে এ বিদ্যুৎ যোগ করছে। প্ল্যান্টের প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী অজিত কুমার সরকার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, কয়েকদিন আগে ২২৫ মেগাওয়াট কম্বাইন্ড সাইকেল পাওয়ার প্ল্যান্ট এবং ইউনাইটেড পাওয়ার লিমিটেডের ২১০ মেগাওয়াট মডিওলার পাওয়ার প্ল্যান্টের কাজ শেষ হয়েছে।

নতুন এই ইউনিট দুটির মধ্যে ২২৫ মেগাওয়াট কম্বাইন্ড সাইকেল পাওয়ার প্ল্যান্টটিতে গত ১৪ মার্চ থেকে পরীক্ষামূলক উৎপাদন শুরু হয়। এরপর মঙ্গলবার থেকে বাণিজ্যিকভাবে উৎপাদনে যাচ্ছে ইউনিটটি। বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) প্রকৌশলি নুরুল আলম জানান, বর্তমানে এই ইউনিট থেকে ১৫৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ জাতীয় গ্রিডে যোগ হবে। পর্যায়ক্রমে এর পরিমাণ আরো বাড়বে। এ পরিমাণ বিদ্যুৎ জাতীয় গ্রিডে যোগ হওয়ার ফলে দেশের বর্তমান বিদ্যুতের চাহিদা পূরণে বিশেষ ভূমিকা রাখবে। আসন্ন গ্রীষ্ম মৌসুমেও লোডশেডিং কমে আসবে বলে তিনি আশা করেন।

প্রসঙ্গত, দেশের বৃহত্তম বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র আশুগঞ্জ তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের অধীনে একের পর এক নতুন ইউনিট স্থাপতি হচ্ছে। বর্তমানে এ কেন্দ্রে নিজস্ব নয়টি ও বেসরকারি চারটি ইউনিট রয়েছে। এছাড়া আরো ১৩শ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন নতুন চারটি ইউনিট নির্মাণ কাজ চলছে। তার মধ্যে চারশ ৩৫ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন দুটির মধ্যে ২২৫ মেগাওয়াটের এ ইউনিটে আজ মঙ্গলবার সকাল থেকে বাণিজ্যিক উৎপাদন শুরু হচ্ছে। ২১০ মেগাওয়াটের অপর ইউনিটটিতে পরীক্ষামূলক উৎপাদন চলছে।