ইন্টারনেট ব্যবহারে ভারত-পাকিস্তানের চেয়ে এগিয়ে বাংলাদেশ

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান পিউ রিসার্চ সেন্টারের সর্বশেষ প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী ইন্টারনেট ব্যবহারে প্রতিবেশি দেশ ভারত ও পাকিস্তানের চেয়ে এগিয়ে বাংলাদেশ।

বিশ্বের উদীয়মান ও উন্নয়নশীল ৩২টি দেশের ইন্টারনেট ও মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীদের ওপর পরিচালিত জরিপে এমন তথ্য উঠে এসেছে।

গত ১৯ মার্চ জরিপের ফলাফল প্রকাশ করা হয়। জরিপে অংশগ্রহণকারী দেশসমূহের প্রাপ্তবয়স্ক ৩৬ হাজার ৬১৯ জন ইন্টারনেট ও মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীর সাক্ষাৎকার নেওয়া হয়। জরিপে বাংলাদেশের এক হাজার মানুষের মতামত স্থান পেয়েছে।

পিউ রিসার্চের জরিপে বলা হচ্ছে, বাংলাদেশের ৫৯ শতাংশ ইন্টারনেট গ্রাহক প্রতিদিন অন্তত একবার ইন্টারনেট ব্যবহার করেন। এদিক থেকে ভারতের (৫৪ শতাংশ) চেয়ে এগিয়ে বাংলাদেশ। এদিকে বাংলাদেশের ৭৬ শতাংশ মানুষ মোবাইল ফোন ব্যবহার করেন। অর্থাৎ ২৪ শতাংশ মানুষের কোনো মোবাইল ফোন নেই। মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীদের মাত্র ৬ শতাংশের নিজস্ব স্মার্টফোন আছে। আবার দেশের ১১ শতাংশ মানুষ ইন্টারনেট ব্যবহার করে কিংবা তাদের স্মার্টফোন আছে। এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশের চেয়ে পিছিয়ে আছে পাকিস্তান (৮ শতাংশ)।

জরিপ বলছে, ৬২ শতাংশ ব্যবহারকারী চাকরি খুঁজতে ইন্টারনেট ব্যবহার করেন। এ ক্ষেত্রেও ভারতের (৫৫ শতাংশ) চেয়ে বাংলাদেশ এগিয়ে। বাংলাদেশের প্রাপ্তবয়স্ক ইন্টারনেট গ্রাহকদের ৭৬ শতাংশই সামাজিক যোগাযোগের বিভিন্ন মাধ্যম ব্যবহার করে। এ ক্ষেত্রেও ভারতের (৬৫ শতাংশ) চেয়ে এগিয়ে আছে বাংলাদেশ। সবচেয়ে বেশি সামাজিক মাধ্যম ব্যবহার করেন ফিলিপাইনের মানুষ, ৯৩ শতাংশ। শিক্ষা, ব্যক্তিগত সম্পর্ক, অর্থনীতি, রাজনীতি ও নৈতিকতা—এ পাঁচ ক্ষেত্রে ইন্টারনেট ব্যবহার কেমন প্রভাব ফেলে—জানতে চাওয়া হয়েছিল জরিপে অংশ নেওয়া ব্যক্তিদের কাছে। এ ক্ষেত্রে দেশের ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের ৫৬ শতাংশ শিক্ষায়, ৪৮ শতাংশ ব্যক্তিগত সম্পর্কে, ৫০ শতাংশ অর্থনীতিতে, ৩৮ শতাংশ রাজনীতিতে এবং ২৯ শতাংশ নৈতিকতায় ইন্টারনেট ভূমিকা রাখতে পারে বলে মত দেন।