সঞ্চয়ের টাকায় সড়ক সংস্কার

বগুড়ায় ১৭ যুবকের উদ্যোগে শুরু হয়েছে সড়ক সংস্কার কাজ। যানবাহন চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়া সড়ক সরকারিভাবে সংস্কার না করায় তারা এ উদ্যোগ নিয়েছেন। বগুড়া শহর থেকে চন্দনবাইশা সড়কের গোলাবাড়ি পর্যন্ত ১৫ কিলোমিটার সড়কের ১১ কিলোমিটার সড়ক সংস্কারের কাজ করছেন গোলাবাড়ি সিএনজিচালিত অটোরিকশা মালিক সঞ্চয় সমিতি। স্থানীয় ১৭ যুবকের গড়ে তোলা এ সমিতির সঞ্চয়ের টাকা থেকে ৫০ হাজার টাকা ব্যয় করা হবে সংস্কার কাজে। পূর্ব বগুড়ার প্রায় ৫০ হাজার মানুষ প্রতিদিন চন্দন বাইশা সড়ক দিয়ে বগুড়া শহরে যাতায়াত করেন। এ সড়কে দ্রুত সময়ে চলাচলের একমাত্র বাহন সিএনজিচালিত অটোরিকশা। এছাড়াও মালবোঝাই ট্রাক চলাচল করে থাকে এ সড়কে। স্থানীয় সরকার ও প্রকৌশল অধিদফতরের (এলজিইডি) অধীনের এ সড়কটি ৩ বছর আগে সংস্কার করা হয়েছিল। কিন্তু অতিরিক্ত মালবোঝাই ট্রাক চলাচলের কারণে ১ বছর যেতে না যেতেই সড়কের কার্পেটিং উঠে যায় এবং ১১ কিলোমিটারজুড়ে বড় বড় গর্ত সৃষ্টি হয়ে যানবাহন চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়ে। স্থানীয় লোকজন প্রতিদিনই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এ সড়ক দিয়ে চলাচল করে আসছেন। মাঝে মধ্যেই ঘটছে দুর্ঘটনা। এ কারণে সরকারি উদ্যোগের দিকে তাকিয়ে না থেকে গোলাবাড়ি সিএনজিচালিত অটোরিকশা মালিক সঞ্চয় সমিতির উদ্যোগে শনিবার থেকে সড়ক সংস্কার কাজ শুরু করা হয়েছে। সড়কের বিভিন্ন স্থানে সৃষ্টি হওয়া গর্তগুলো খোয়া এবং সিমেন্ট দিয়ে ভরাট করে যানবাহন চলাচলের উপযোগী করে তোলা হচ্ছে। সমিতির সভাপতি আবু তালেব শাহিন জানান, এ সড়কে প্রতিদিন ৩৫০টি সিএনজিচালিত অটোরিকশা ছাড়াও বিভিন্ন ধরনের যানবাহন চলাচল করে। সরকারিভাবে উদ্যোগ না নেয়ায় সমিতির তহবিল থেকে প্রাথমিক পর্যায়ে  ৫০ হাজার টাকা ব্যয় করা হবে সংস্কার কাজে।

স্থানীয় সরকার ও প্রকৌশল অধিদফতর বগুড়ার নির্বাহী প্রকৌশলীর দফতর সূত্রে জানা গেছে, ৩ বছর আগে ওই সড়কটি সংস্কার করা হয়েছিল। এরপর আর কোনো বরাদ্দ না আসায় সংস্কার করা হয়নি। তবে সড়কটির উভয় পাশে আরও দুই ফুট করে প্রশস্ত করে ভারি যানবাহন চলাচলের উপযোগী করার জন্য একটি প্রস্তাবনা খুব শিগগিরই পাঠানো হবে।