সিঙ্গাপুরে চাকরি পাবে বাংলাদেশি নাবিকরা

সিঙ্গাপুরে আবারও বাজার সৃষ্টি হচ্ছে বাংলাদেশি নাবিকদের। দীর্ঘদিন পর বাংলাদেশ থেকে নাবিক নিতে রাজি হয়েছে সিঙ্গাপুরভিত্তিক চায়নিজ একটি শিপিং কম্পানি। এত দিন প্রতিষ্ঠানটি ফিলিপাইন থেকে নাবিক নিত। এ দেশের তিনটি বেসরকারি মেনিং এজেন্টের (নাবিক নিয়োগকারী সংস্থা) মাধ্যমে ওই শিপিং কম্পানিতে নিয়মিত চাকরি পাবে বাংলাদেশের নাবিকরা।

জানা গেছে, বিশ্বের খ্যাতনামা সব শিপিং কম্পানি দুবাই, সিঙ্গাপুর ও হংকংভিত্তিক। তাই ভালো কোনো শিপিং কম্পানিতে চাকরি পেতে হলে সিঙ্গাপুর কিংবা হংকং হয়েই জাহাজে উঠতে হয়। কিন্তু তাদের ভিসাসংক্রান্ত জটিলতার কারণে বাংলাদেশিরা ভালো চাকরি পাচ্ছে না।

নাবিকদের এই সমস্যা দূর করার জন্য নৌ মন্ত্রণালয়ের উচ্চ পর্যায়ের দুটি প্রতিনিধিদল গত বছর মে মাসে এবং গত ১৩ থেকে ১৭ জানুয়ারি সিঙ্গাপুর সফর করে। প্রতিনিধিদলের সদস্যরা সিঙ্গাপুরে অবস্থিত বিভিন্ন দেশের শিপিং কম্পানির কর্মকর্তাদের সঙ্গে বাংলাদেশি নাবিক নিয়োগের বিষয়ে আলোচনা করেন।

এরই ধারাবাহিকতায় সিঙ্গাপুরভিত্তিক চায়নিজ শিপিং কম্পানি ওশান ট্যাংকারস শিপ ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড গত ৩০ জানুয়ারি বাংলাদেশি নাবিক নিয়োগের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। চায়নিজ এই শিপিং কম্পানির অধীনে আন্তর্জাতিক রুটে চলাচলকারী ৮২টি বড় জাহাজ রয়েছে। এ ছাড়া ৫১টি সাপোর্ট ভ্যাসেল (টাগবোট, বাংকারিং জাহাজ, লাইটার জাহাজ ইত্যাদি) রয়েছে প্রতিষ্ঠানটির।

ওশান ট্যাংকারস শিপ ম্যানেজমেন্ট লিমিটেডের টেকনিক্যাল ম্যানেজার প্রকৌশলী আবদুল বাতেন এক ই-মেইল বার্তায় বাংলাদেশ মার্চেন্ট মেরিন অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশনের নেতাদের জানান, গত ১৮ জানুয়ারি তাদের প্রতিষ্ঠানের শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের বৈঠকে বাংলাদেশি নাবিক নিয়োগের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

সিঙ্গাপুর সফরকারী নৌ মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধিদলের সদস্য বাংলাদেশ ন্যাশনাল মেরিটাইম ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষ ক্যাপ্টেন ফয়সল আজিম কালের কণ্ঠকে বলেন, সিঙ্গাপুরসহ বিভিন্ন দেশে বাংলাদেশি নাবিকদের ভিসা জটিলতার কারণে চাকরি হচ্ছিল না। সরকার গত বছর থেকে এই সংকট দূর করার জন্য চেষ্টা করছে। এ লক্ষ্যে নৌ মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিবের নেতৃত্বে উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধিদল দুইবার সিঙ্গাপুরে সরকারি কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন শিপিং কম্পানির কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন।

ফয়সল আজিম আরো বলেন, সরকার নাবিকদের সমস্যা সমাধানে এখন বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। এরই অংশ হিসেবে সিঙ্গাপুরে ভিসা জটিলতা দূর করাসহ চাকরির বাজার সৃষ্টির জন্য প্রচারণার কাজ শুরু হয়েছে। সরকারের এই চেষ্টা অব্যাহত থাকলে দুবাই, ভারত, হংকং, সৌদি আরব এবং ইউরোপের বিভিন্ন দেশে বাংলাদেশি নাবিকদের যাতায়াত এবং চাকরির বাজার ফিরে আসবে।

বাংলাদেশ মার্চেন্ট মেরিন অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশনের নেতাদের সঙ্গে আলাপ করে জানা গেছে, বাংলাদেশের প্রায় ছয় হাজার প্রশিক্ষিত মেরিন অফিসার এবং তিন হাজার ক্রু বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বাণিজ্যিক জাহাজে চাকরি করে প্রতিবছর প্রায় ৩০০ কোটি টাকার বৈদেশিক মুদ্রা দেশে পাঠায়। অথচ এখন বাংলাদেশি নাবিকরা বিশ্বের বিভিন্ন দেশে যাতায়াতে ভিসা জটিলতার কারণে বাধার সম্মুখীন হচ্ছে।