দারিদ্র্যের হার ১০ দশমিক ৬৪ শতাংশ : দেশে দরিদ্র্র মানুষের সংখ্যা কমছে

দেশের দরিদ্র মানুেেষর সংখ্যা উল্লেখ্যযোগ্য হারে কমেছে। ২০০৫ সালে দারিদ্র্যের হার ছিল ৪০ শতাংশ, ২০১৪ সালে যা ২৪ দশমিক ৪৭ শতাংশে নেমে এসেছে। একই সময়ে অতি-দারিদ্র্যের হার ২৪ দশমিক ২ শতাংশ থেকে ১০ দশমিক ৬৪ শতাংশে নেমে এসেছে।
২০০১ সাল থেকে ২০০৬ পর্যন্ত ৫ বছরের সঙ্গে পরবর্তী ৫ বছরের তুলনামূলক এক মূল্যায়ন প্রতিবেদনে এসব তথ্য তুলে ধরেছে পরিকল্পনা কমিশনের সাধারণ অর্থনীতি বিভাগ (জিইডি)। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ১৯৯২ সালের পর থেকে বর্তমান সময় পর্যন্ত বাংলাদেশে মোট যত মানুষ দারিদ্র্যমুক্ত হয়েছে তার ৪৫ ভাগই হয়েছে গত ৫ বছরে।
জিইডির সদস্য ড. শামসুল আলম এ ব্যাপারে বলেন, সরকার দীর্ঘমেয়াদি পরিপ্রেক্ষিত পরিকল্পনা এবং ষষ্ঠ পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে, যা বর্তমানে বাস্তবায়নাধীন রয়েছে। এসব পরিকল্পনায় বাংলাদেশকে ২০২১ সালের মধ্যে তথ্য ও প্রযুক্তি নির্ভর মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত করা এবং দারিদ্র্যের হার ১৩ দশমিক ৫ শতাংশে নামিয়ে আনার লক্ষ্য রয়েছে। সরকারের দক্ষ সামষ্টিক ব্যবস্থাপনার ফলে রাজস্ব আহরণে ঊর্ধ্বগতি এবং ঋণ গ্রহণে স্থিতিশীলতা রজায় রাখা সম্ভব হয়েছে। পাশাপাশি মূল্যস্ফীতিও উল্লেখযোগ্য হারে কমেছে।
প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০০৯ থেকে ২০১৪ মেয়াদকালে গড়ে মোট দেশজ উৎপাদন (জিডিপি) প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৬ দশমিক ১৪ শতাংশ। অপরদিকে তার আগের ৫ বছরে প্রবৃদ্ধির গড় হার ছিল ৫ দশমিক ৪০ শতাংশ। এতে বলা হয়, অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির ফলে জনগণের মাথাপিছু আয় বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০০৫-০৬ অর্থবছরে মাথাপিছু আয় ছিল ৫৪৩ মার্কিন ডলার, যা ২০১৩-১৪ অর্থবছরে দ্বিগুণেরও বেশি বৃদ্ধি পেয়ে হয়েছে ১ হাজার ১৯০ মার্কিন ডলার। ক্রয়ক্ষমতার সমতারভিত্তিতে ২০০৫-০৬ অর্থবছরে মাথাপিছু আয়ের পরিমাণ ছিল ১ হাজার ৯৮০ মার্কিন ডলার, যা ২০১৩-১৪ অর্থবছরে দাঁড়িয়েছে ৩ হাজার ৬৬৮ মার্কিন ডলারে।
প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০০৫-০৬ অর্থবছরের তুলনায় ২০১৩-১৪ অর্থবছরে মোট রাজস্ব ও কর রাজস্ব ৩ গুণের অধিক বেড়েছে। নতুন ভিত্তি বছর অনুযায়ী মোট রাজস্ব আয় জিডিপির ৮ দশমিক ৮ শতাংশ থেকে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১০ দশমিক ৫ শতাংশে।
প্রতিবেদনের সঞ্চয় ও বিনিয়োগ অংশে বলা হয়েছে, জাতীয় সঞ্চয় ২০০৫-০৬ অর্থবছরে জিডিপির ২৭ দশমিক ৮ শতাংশ থেকে বেড়ে ২০১৩-১৪ অর্থবছরে দাঁড়িয়েছে ৩০ দশমিক ৫ শতাংশে। অপরদিকে, বিনিয়োগ ২০০৫-০৬ অর্থবছরে জিডিপির ২৬ দশমিক ১৪ শতাংশ থেকে বেড়ে ২০১৩-১৪ অর্থবছরে হয়েছে ২৮ দশমিক ৬৯ শতাংশে।
সরকারের দক্ষ আর্থিক ও রাজস্ব খাত ব্যবস্থাপনা এবং নিয়মিত ও কার্যকর তদারকির মাধ্যমে গত ৫ বছরে গড় প্রবৃদ্ধি ৬ দশমিক ১৪ শতাংশ হলেও মূল্যস্ফীতি ৭ দশমিক ৪ শতাংশের মধে সীমাবদ্ধ রাখা সম্ভব হয়েছে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ্য করা হয়েছে।