নারী সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের সেমিফাইনালে বাংলাদেশ

বাংলাদেশের মেয়েদের জন্য নিজেদের গ্রুপের শেষ ম্যাচের হিসাবটা খুব সহজ ছিল। মালদ্বীপের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ জিতলে সেমিফাইনালে যাবে, আর  ড্র হলে সেক্ষেত্রে গোল গড়ের হিসাব উঠে আসবে। তারপরও গোল গড়ে বাংলাদেশই সুবিধাজনক স্থানে ছিল। কিন্তু সোমবার পাকিস্তানে গোল গড়ের অংক নিয়ে বসতে হয়নি।
কেননা  ইসলামাবাদের জিন্নাহ স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ ৩-১ গোলে মালদ্বীপকে হারিয়েই সেমিফাইনালে উঠেছে। তিন খেলায় ৬ পয়েন্ট নিয়ে ‘এ’ গ্রুপ রানার্সআপ বাংলাদেশ আগামীকাল দ্বিতীয় সেমিফাইনাল খেলবে ‘বি’ গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন এবং সাফের বর্তমান রানার্সআপ নেপালের বিরুদ্ধে। তার আগে একই দিনে ‘এ’ গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন ভারত প্রথম সেমিফাইনাল খেলবে ‘বি’ গ্রুপ রানার্সআপ শ্রীলংকার বিরুদ্ধে।
গ্রুপের তিন ম্যাচে মালদ্বীপ একমাত্র আফগানিস্তানকে হারিয়েছে। আর আফগানিস্তান তিন ম্যাচের সবকটিতেই হেরেছে, গোল করেছে একটি। সেটি বাংলাদেশের বিরুদ্ধে। আর সব মিলিয়ে গোল হজম করেছে ১৯টি। প্রথম সাফে দুই গোল করেছিল আফগানিস্তান। গোল হজম করেছিল ১৮টি। সেবার এক পয়েন্ট পয়েন্ট পেলেও এবার শুণ্য হাত।  অথচ ২০১২ সালে শ্রীলংকায় অনুষ্ঠিত নারী সাফের দ্বিতীয় আসরে আফগানিস্তান সেমিফাইনালে উঠে ভারতের কাছে ১১-০ গোলে হেরে বিদায় নিয়েছিল। এবার গ্রুপ পর্বেই বিধ্বস্ত হয়ে ঘরে ফিরছেন আফগান ফুটবলাররা।
বাংলাদেশকে নিয়ে আশা ছিল না। কিন্তু বাংলাদেশের নারী ফুটবলাররা অপ্রত্যাশিত ফল উপহার দিয়েছেন। শ্রীলংকার আসরটির পর আবার সেমিফাইনালে উঠেছে বাংলাদেশ। তবে আশংকার কথা হচ্ছে আবার সেই নেপালের বিরুদ্ধে লড়াই করতে হবে বাংলাদেশকে।  কক্সবাজারে ২০১০ সালে অনুষ্ঠিত প্রথম নারী সাফে সেমিফাইনালে নেপালের কাছে ৩-০ গোলে হেরে বিদায় নিতে হয়েছিল সুইনু, সাবিনাদের। এবার নতুন করে ভাবনা শূরু হচ্ছে।
প্রত্যাশা ছাপিয়ে যাওয়ার ম্যাচে কাল বাংলাদেশ সহজেই ৩-১ গোলে হারিয়েছে মালদ্বীপকে। ম্যাচের প্রথমার্ধে বাংলাদেশ ২-০ গোলে এগিয়ে ছিল। দ্বিতীয়ার্ধে বাংলাদেশ তৃতীয় গোলটি করে এবং মালদ্বীপের কাছে গোল হজম করে। বাংলাদেশের মাইনু মারমা ম্যাচের ১৮ মিনিটে গোল করেন ১-০। ৩৫ মিনিটে সাবিনা খাতুনের গোল ব্যবধান বাড়ায় ২-০। ৮৪ মিনিটে মালদ্বীপের আশাথ সামা ব্যবধান কমালেও (১-২) ৮৭ মিনিটে সাবিনা নিজের দ্বিতীয় গোল করে জয় নিশ্চিত করেন ৩-১। সাবিনা প্রথম ম্যাচে আফগানিস্তান এবং দ্বিতীয় ম্যাচে ভারতের বিরুদ্ধে একটি করে গোল করেছেন। তার গোল সংখ্যা এখন চার।
ম্যাচ শেষে কাল বাংলাদেশের জাপানী কোচ সুকিতা নরি বলেছেন, আমাদের দল ভালো খেলেছে এবং জয়টা আমাদের প্রাপ্য।’ মালদ্বীপেরও জাপানী কোচ। রিওনাওক নামের এই জাপানী কোচ বাংলাদেশের জয় অভিনন্দন জানিয়ে বলেছেন, পুরো ম্যাচটা ভালো খেলেছে এবং প্রভাব খাটিয়েছে। তারাই সেমিফাইনালে উঠার যোগ্যতর দল।’
গতকাল বাংলাদেশের গ্রুপের অন্য ম্যাচে ভারত ১২-০ গোলে আফগানিস্তানকে হারায়।
বাংলাদেশ গ্রুপের প্রথম ম্যাচে আফগানিস্তানকে ৬-১ গোলে হারিয়ে সূচণা করে। দ্বিতীয় ম্যাচে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ভারতের কাছে ৫-১ গোলে হারে। ইসলামাবাদ নারী সাফের ফাইনাল ২১ নভেম্বর।