ঢাকা দূতাবাসে লেবার এ্যাটাচে নিয়োগ দেবে আমিরাত

বাংলাদেশ থেকে সংযুক্ত আরব আমিরাতে (ইউএই) শ্রমিকদের আসার প্রক্রিয়া আরো সহজতর করার লক্ষ্যে ঢাকায় আমিরাত দূতাবাসে একজন লেবার এ্যাটাচে নিয়োগ দেয়া হবে।
আমিরাতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ আবদুল্লাহ বিন জায়েদ আল-নাহিয়ান রবিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাত্ করে একথা বলেন।
আবুধাবির সেন্ট রেগিস হোটেলে এই দ্বিপাক্ষিক বেঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে অন্যদের মধ্যে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন, পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী, শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মো. মুজিবুল হক, স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সিনিয়র সচিব আবুল কালাম আজাদ উপস্থিত ছিলেন।
বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাহমুদ আলী বলেন, বৈঠকে আমিরাতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীকে বলেছেন, আগামী বছরের প্রথম দিকে বাংলাদেশে আরব আমিরাতের দূতাবাসে একজন লেবার এ্যাটাচে নিয়োগ দেয়া হবে।
বাংলাদেশ থেকে সংযুক্ত আরব আমিরাতে শ্রমিকদের আসার প্রক্রিয়া আরো সহজতর করার লক্ষ্যে এই লেবার এ্যাটাচে নিয়োগ দেয়া হবে বলে জানান আমিরাতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী।
মাহমুদ আলী বলেন, সৌহার্দ্য এবং আন্তরিক পরিবেশে এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংযুক্ত আরব আমিরাতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ আবদুল্লহ বিন জায়েদ আল-নাহিয়ানকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানান।
এ সময় তিনি এর আগে ২০০৯ সালে বাংলাদেশ সফরের স্মৃতিচারণ করে আবারো বাংলাদেশ সফর করবেন বলে জানান।
এর আগে সকালে দুবাই পোর্ট ওর্য়াল্ডের চেয়ারম্যান সুলতান বিন আহমেদ সোলায়েমের সঙ্গে বৈঠকে পায়রা গভীর সমুদ্রবন্দর, বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল ও মেরিন ড্রাইভ নির্মাণে দুবাই পোর্ট ওয়ার্ল্ডকে প্রধানমন্ত্রীর আমন্ত্রণ জানানোর বিষয়টি আলোচনা হয়েছে বলে জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী।
ব্রিফিংয়ে অন্যদের মধ্যে পররাষ্ট্র সচিব শহিদুল হক, প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী ,প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব এ কে এম শামীম চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।