আইপিইউ’র প্রেসিডেন্ট হলেন সাবের

ইন্টার পার্লামেন্টারি ইউনিয়নের (আইপিইউ) প্রেসিডেন্ট পদে নির্বাচিত হয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের সদস্য সাবের হোসেন চৌধুরী।

বৃহস্পতিবার সুইজারল্যান্ডের রাজধানী জেনেভায় আইপিইউ‘র ১৩১তম সাধারণ অধিবেশনে এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি অ্যাসোসিয়েশনের (সিপিএ) চেয়ারপার্সনের পর বিশ্বের ১৬৪টি দেশের আইনসভার সংগঠন আইপিইউ’র প্রেসিডেন্ট পদে প্রথমবার জিতল বাংলাদেশ।

গত ৯ অক্টোবর সিপিএ চেয়ারপার্সন পদে ভোটে জেতেন বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী।

সংসদ সচিবালয়ের গণ সংযোগ শাখার পরিচালক এসএম মঞ্জুর বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “সাবের হোসেন চৌধুরী নির্বাচনে ১৬৯টি ভোট পেয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী অস্ট্রেলিয়ার পার্লামেন্টের স্পিকার ব্রনউইন বিশপ পেয়েছেন ৯৫ ভোট।”

তিন বছর মেয়াদি আইপিইউ প্রেসিডেন্ট পদে ঢাকা-৯ আসনে আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য সাবেরের আরও দুই প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন ইন্দোনেশিয়ার সংসদ সদস্য নুরহায়াতি আলী আসিগাফ ও মালদ্বীপের আইনসভার সাবেক স্পিকার আবদুল্লাহ শহীদ।

বর্তমানে এই সংস্থার প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালন করছেন মরক্কোর পার্লামেন্টের স্পিকার আবদেল ওয়াহাদ রাদি। তার কাছ থেকে বৃহস্পতিবারই দায়িত্ব বুঝে নিয়েছেন সাবের চৌধুরী।

আইপিইউ সম্মেলনে স্পিকার শিরীন শারমিনের নেতৃত্বে ১৭ সদস্যের প্রতিনিধিদল যোগ দিয়েছেন।

বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি সাবের হোসেন চৌধুরীর জন্ম ১৯৬১ সালের ১০ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রাম জেলায়।

আওয়ামী লীগের ১৯৯৬-২০০১ মেয়াদে সাবের হোসেন স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী ছিলেন।

১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি ছিলেন তিনি। ২০০১ থেকে ২০০৯ পর্যন্ত আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক সচিবের দায়িত্বও পালন করেন সাবের।

১৯৯৬ সালে সপ্তম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মাধ্যমে প্রথম সংসদে আসেন সাবের। গত নবম সংসদের সংসদ সদস্য ছিলেন তিনি। তখন তিনি বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সদস্য ছিলেন।

সাবেরকে স্পিকারের অভিনন্দন

আইপিইউ প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ায় সাবের হোসেন চৌধুরীকে অভিনন্দন জানিয়েছেন জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী এবং ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়া।

সংসদ সচিবালয়ের পাঠানো এক অভিনন্দন বার্তায় শিরীন শারমিন বলেন, “সাবের হোসেন চৌধুরী প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে আইপিইউ প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ায় বাংলাদেশের অবস্থান বিশ্ব দরবারে আরও উজ্জ্বল হয়েছে। এ বিরল অর্জন বাংলাদেশের সংসদীয় গণতন্ত্রের অগ্রযাত্রার ক্ষেত্রে এক মাইল ফলক।”

ফজলে রাব্বী মিয়া অভিনন্দন বার্তায় বলেন, এর মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ বিশ্ব নেতৃত্বের আসনে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার ক্ষেত্রে আরও এক ধাপ এগিয়ে গেল।

“তার এই অর্জন বাংলাদেশের এগিয়ে যাওয়ারই বাস্তব উদাহরণ।”