গ্লোবাল আইসিটি অ্যাওয়ার্ড পেল বাংলাদেশ

তথ্যপ্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে সমাজের অগ্রগতিতে অনন্য অবদানের জন্য ‘পাবলিক সেক্টর এক্সিলেন্স’ ক্যাটাগরিতে ‘গ্লোবাল আইসিটি এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড’ পেল বাংলাদেশ।

বুধবার বাংলাদেশ সময় ভোর সাড়ে ৬টায় (মেক্সিকোর স্থানীয় সময় ৩০ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায়) মেক্সিকোর গুয়াদালাজারা শহরে তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক বিশ্ব সম্মেলনে (ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস অন আইটি-ডব্লিওসিআইটি) আনুষ্ঠানিকভাবে এ পুরস্কার গ্রহণ করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

পুরস্কার গ্রহণের পর প্রতিক্রিয়ায় জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা ডিজিটাল বাংলাদেশর যে স্বপ্ন দেখিয়ে আমাদেরকে একটি আধুনিক ও স্বনির্ভর জাতি হিসেবে মাথা উঁচু করে দাঁড়ানোর প্রেরণা যুগিয়েছেন, এ পুরস্কার তার সে প্রেরণাদায়ী দৃষ্টিভঙ্গিকে আরো এগিয়ে নিয়ে যাবে।

পলক আরো বলেন, জাতির পিতার সুযোগ্য কন্যার যুগোপযোগী নেতৃত্ব ও তার সুযোগ্য দৌহিত্র, প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের সার্বিক দিক-নির্দেশনা ও প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে ডিজিটাল বাংলাদেশের গন্তব্যে আমরা প্রতিনিয়তই এগিয়ে যাচ্ছি।

তথ্যপ্রযুক্তির অগ্রগতিতে প্রধানমন্ত্রীর ডাকে সাড়া দেওয়ায় এ পুরস্কার বাংলাদেশের ১৬ কোটি মানুষের বিজয় বলে আমি মনে করি।

ওয়ার্ল্ড ইনফরমেশন টেকনোলজি সার্ভিসেস অ্যালায়েন্সের(ডব্লিউআইটিএসএ) ৮০টি সদস্য রাষ্ট্রের সমন্বয়ে গঠিত বিশেষজ্ঞ কমিটি তথ্য ও প্রযুক্তি খাতের উদ্ভাবনী কাজের জন্য এ পুরস্কার দিয়ে থাকে।

পাবলিক সেক্টর এক্সিলেন্স, প্রাইভেট সেক্টর এক্সিলেন্স, ডিজিটাল অপরচ্যুনিটি ও সাসটেইনেবল গ্রোথ ক্যাটাগরিতে প্রতি দু’বছর অন্তর অন্তর এ পুরস্কার দেওয়া হয়।

এর আগে গত ১০ জুন সুইজারল্যান্ডের রাজধানী জেনেভায় আর্ন্তজাতিক টেলিকমিউনিকেশন সংস্থা (আইটিইউ) ই-সেবায় অনন্য অবদান রাখা এবং জনগণের দোরগোড়ায় প্রযুক্তি সেবা পৌঁছে দেওয়ায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এক্সেস টু ইনফরমেশন(এটুআই) প্রকল্পকে ওয়ার্ল্ড সামিট অন দ্য ইনফরমেন সোসাইটি (ডব্লিওএসআইএস) ক্যাটাগরিতে ডব্লিওএসআইএস+১০ পুরস্কার প্রদান করে।