বই আমদানি কমেছে

আন্তর্জাতিক বাজার থেকে গত ২০১৩-১৪ অর্থবছরে বই আমদানি কমেছে।

আজ বুধবার রাজধানীর মতিঝিলে ফেডারেশন ভবনে অনুষ্ঠিত এক সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এফবিসিসিআই,গ্লোবাল ইনটেলেকচ্যুয়াল একাডেমি ও ভারতের এফআইসিসিআই যৌথভাবে এ সম্মেলনের আয়োজন করে।

সম্মেলনে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ইউনিভার্সিটি প্রেস লিমিটেড (ইউপিএল) ব্যবস্থাপনা পরিচালক মহিউদ্দিন আহমদ।

এতে বলা হয়, গত পাঁচ বছরে বাংলাদেশে ৬৭০ কোটি টাকার বই ও ম্যাগাজিন আমদানি করা হয়েছে। এর মধ্যে শুধু বই আমদানি হয়েছে ৬৫২ কোটি ৬০ লাখ টাকার।

পর্যায়ক্রমে বই আমদানি বাড়তে থাকলেও গত বছর তা কমেছে‑ উল্লেখ করে প্রবন্ধে বলা হয়, ২০১৩-১৪ অর্থবছরে ১৩২ কোটি ৫০ লাখ টাকার বই আমদানি করা হয়েছে। এর আগের অর্থবছরে আমদানি করা হয়েছিল ১৭৯ কোটি ৬০ লাখ টাকার বই।

দু’দিনব্যাপী সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। এছাড়া সংস্কৃতি সচিব রনজিত কুমার বিশ্বাস, এফবিসিসিআই সভাপতি কাজী আকরাম উদ্দিন আহমদ, ভারতের এফআইসিসিআই সহ-সভাপতি রহিত কুমার, যুক্তরাষ্ট্রের প্যাটেন্ট বিভাগের উপদেষ্টা জেনিন নিস সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মন্ত্রী বলেন, প্রকাশনা জগতে বাংলাদেশ অনেক এগিয়েছে। বিশ্বব্যাপী এই খাত উন্নয়নের সুযোগ আছে। ভৌগলিক কারণে বাংলাদেশ ভারত আলাদা হলেও সাংস্কৃতিক মিল আছে। দুই দেশেরই বই বিনিময়ের সুযোগ আছে।

তিনি বলেন, কপিরাইট বন্ধ করার জন্য এন্টি পাইরেসি টাস্কফোর্স গঠন করা হয়েছে। সাইবার ল’ করা হয়েছে।

সম্মেলন উদ্বোধনীতে বক্তারা বলেন, বই প্রকাশের ক্ষেত্রে পাইরেসি ও কপিরাইটিং বন্ধ করতে হবে। আমাদের পর্যায়ক্রমে ই-পাবলিশিংয়ে যেতে হবে।

সম্মেলনের দ্বিতীয় পর্বে সভাপতিত্ব করেন সাবেক তথ্যমন্ত্রী ও সিডিআরবি চেয়ারম্যান ড. মিজানুর রহমান শেলি।