তাইওয়ানে ওষুধ রফতানি করবে বেক্সিমকো

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক : তাইওয়ান ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (টিএফডিএ) থেকে গুড ম্যানুফ্যাকচারিং প্র্যাকটিসেস সার্টিফিকেট পেয়েছে দেশের নেতৃস্থানীয় ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান বেক্সিমকো ফার্মা।
বাংলাদেশের প্রথম কোন ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান এ ধরণের সনদ পেল। এর ফলে তাইওয়ানে বেক্সিমকোর ওষুধ রফতানির পথ উন্মুক্ত হয়েছে বলে জানিয়েছে বেক্সিমকো ফার্মা। প্রাথমিকভাবে ওরাল সলিড, ইনহেলার ও স্টেরিল আই ড্রপের জন্য অনুমোদন পেয়েছে বেক্সিমকো ফার্মা।
তাইওয়ান এফডিএ বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় রেগুলেটরদের মধ্যে অন্যতম। এই প্রতিষ্ঠানটি সনদ প্রদানের ক্ষেত্রে সবসময়ই কঠিন এবং সতর্কতা অবলম্বন করে থাকে। এমন একটি প্রতিষ্ঠান থেকে সনদ প্রাপ্তি বেক্সিমকো ফার্মার জন্য অনন্য অর্জন। এই অর্জনের মাধ্যমে শুধু তাইওয়ান নয় আসিয়ানভূক্ত অন্যান্য দেশেও ওষুধের বাজার উন্মুক্ত হবে বলে আশা করছে কর্তৃপক্ষ।
এই অর্জন বিশ্বব্যাপি প্রতিনিয়ত বেক্সিমকো ফার্মার বাজার সম্প্রসারণের প্রচেষ্টাকে স্বীকৃতি দেয়। বর্তমানে এই প্রতিষ্ঠানটি বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ওষুধ রপ্তানী করছে। প্রতিষ্ঠানটি ইতোমধ্যে তাদের বিশ্বমানের উৎপাদন ব্যবস্থায় এজিইএস (ইইউ), টিজিএ (অস্ট্রেলিয়া) এবং এএনভিআইএসএসহ (ব্রাজিল) আন্তর্জাতিক নিয়ন্ত্রক সংস্থা থেকে জিএমপি (গুড ম্যানুফ্যাকচারিং প্র্যকটিসেস) অনুমোদন পেয়েছে।
বেক্সিমকো ফার্মার ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাজমুল হাসান বলেন “তাইওয়ান এফডিএ থেকে এধরণের উল্লেখযোগ্য অনুমোদন পেয়ে আমরা খুবই গর্বিত। ”
তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের কোম্পানীতে যে উচ্চ গুনগত মান বজায় রেখে ওষুধ উৎপাদন করে তার স্বীকৃতি পত্র এই অনুমোদন। বিশ্বব্যাপি একটি জেনেরিক ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানে পরিণত হওয়া এবং নিয়ন্ত্রিত বাজারে নিজেদের উপস্থিতি মজবুত করার প্রচেষ্টায় এটি একটি কার্যকারী পদক্ষেপ।’