সারাবছর বিদ্যুৎ উৎপাদন করবে চিনিকল

হোয়াইট সুগার বা পরিশোধিত চিনি উৎপাদনের পাশাপাশি সারা বছর বিদ্যুৎ উৎপাদন করবে রাষ্ট্রীয় চিনিকলগুলো। গতকাল সংসদ এ তথ্য জানিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু। মন্ত্রী আরও জানান, ইতিমধ্যে নর্থবেঙ্গল চিনিকলে কো-জেনারেশন পদ্ধতিতে অ-মওসুমে হোয়াইট সুগার ও বিদ্যুৎ উৎপাদনের প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে। প্রকল্পটি সমপ্রতি একনেকে অনুমোদিত হয়েছে। এই প্রকল্পের ফলাফলের ভিত্তিতে পর্যায়ক্রমে রাজশাহী, জয়পুরহাট, মোবারকগঞ্জ ও শ্যামপুর চিনিকলগুলোতেও এই প্রকল্প নেয়া হবে। তিনি আরও জানান, চিনিকল উন্নয়নে সরকার বিভিন্ন প্রকল্প গ্রহণ করেছে। পুরাতন চিনিকলগুলো পর্যায়ক্রমে বিএমআরই করার পকল্প হাতে নিয়েছে সরকার।
সাতটি চিনিকলের নয়টি সেন্ট্রিফেউগাল মেশিন প্রতিস্থাপন করা হয়েছে।
বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খানিজ সম্পদমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু সংসদে জানিয়েছেন, প্রতিবছর কমবেশি ৬০ বিসিএফ গ্যাস উৎপাদন বৃদ্ধি পাচ্ছে। আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য নিজাম উদ্দিন হাজারীর লিখিত প্রশ্নের জবাবে তিনি আরও জানান, ২০১২-১৩ অর্থবছরের ৮০০ দশমিক ৬ বিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস উত্তোলন ও ব্যবহার করা হয়েছে। তবে বর্তমানে গ্যাসের চাহিদার বিপরীতে উৎপাদন কম হওয়ায় গ্যাসের ঘাটতি দেখা দিয়েছে। মজুদ বৃদ্ধি না হলে পরবর্তীতে এ ঘাটতিও বৃদ্ধি পাবে।