ইউরোপীয় বাজারে বাংলাদেশের সাফল্যের ধারা অব্যাহত থাকবে

ইউরোপীয় বাজারে বাংলাদেশের সাফল্যের ধারা অব্যাহত থাকবে বলে মন্তব্য করেছেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) রাষ্ট্রদূত উইলিয়াম হানা।
গতকাল মঙ্গলবার গুলশানে জার্মান হাউজে জার্মান সরকারের সহযোগিতা সংস্থা জিআইজেডের নিজস্ব কার্যালয়ে ‘রিসার্চিং এন্ড এনালাইজিং এক্সপোর্ট মার্কেটস’ কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, ২০১০ সালের পর থেকেই ইউরোপীয় ইউনিয়নে বাংলাদেশের রপ্তানি বাড়ছে। গত তিন বছরে ইউরোপীয় ইউনিয়নে ৫৭ শতাংশ রপ্তানি বেড়েছে। ২০১৩ সালে ইইউতে ১১ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের পণ্য রপ্তানি করেছে বাংলাদেশ।
কর্মশালায় জিআইজেডের কান্ট্রি ডিরেক্টর টোবিয়াস বেকার বলেন, পরিবেশগতভাবে আরো দৃঢ় হতে গেলে আমাদের বর্জ্য কমানো জরুরি। উৎপাদনের সময় সম্পদ ব্যবহারে দক্ষ হতে হবে।
মূল্য প্রতিযোগিতায় সম্পদ ব্যবহারের দক্ষতা প্রধান বিষয়। তিনি আরো বলেন, একটি নিরাপদ ও স্বাস্থ্যকর কর্মপরিবেশে কর্মীরা উজ্জীবিত হবে। আর তাদের উৎপাদনও সে সঙ্গে বাড়বে।
দুর্ঘটনা কম হওয়াতে খরচও কমে যাবে। তাই কর্মক্ষেত্রে সামাজিক ও পরিবেশের মানদ- মেনে চললে তা অতিরিক্ত বোঝা হবে না, যারা উদ্যোক্তা হতে চান তাদের জন্য এটি একটি সুযোগ। তিনি জানান, এ কর্মশালার লক্ষ্য ক্ষুদ্র ও মাঝারি মাপের প্রতিষ্ঠানগুলোকে রপ্তানি বাজারে প্রবেশের জন্য তৈরি করা। এর জন্য প্রয়োজনীয় কারিগরি সহায়তা দেয়া হবে।
রপ্তানি বাজার অনুসন্ধানের জন্য জিআইজেড, ওয়ার্ল্ড ট্রেড অর্গানাইজেশনের ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড সেন্টার (আইটিসি), ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) বাংলাদেশ ও বাংলাদেশ জার্মান চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি (বিজিসিসিআই) সম্মিলিতভাবে ৩ দিনব্যাপী এ কর্মশালার আয়োজন করে। সুইজারল্যান্ডের ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড সেন্টারের (আইটিসি-ইউএন/ডব্লিউটিও) মার্কেট অ্যানালিস্ট অলিভার ফন হ্যাগেন এ প্রশিক্ষণ কর্মশালা পরিচালনা করবেন।