কুয়েত শ্রমবাজার বাংলাদেশিদের জন্য ফের উন্মুক্ত

কুয়েত সিটি: দীর্ঘ সাত বছর পর আরব দেশগুলোর মধ্যে ধনী রাষ্ট্র কুয়েতের শ্রম বাজার বাংলাদেশি শ্রমিকদের জন্য আবার উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়েছে।
বাংলাদেশ দূতাবাসের নিরলস প্রচেষ্টার কারণে এ শ্রমবাজার বাংলাদেশি শ্রমিকদের জন্য উন্মক্ত করে দেওয়া হলো।
তৈলসমৃদ্ধ বিশ্বের অন্যতম ধনীদেশ কুয়েত। এক কুয়েতি দিনার বাংলাদেশি মুদ্রায় ২৮০ টাকা প্রায়, যা অন্যান্য দেশের তুলনায় অনেক বেশি। 
কুয়েত রাজতন্ত্র শাসিত দেশ। এ দেশে মিছিল-মিটিং, সমাবেশ, অবরোধ সম্পূর্ণভাবে নিষিদ্ধ। সব ধরনের অনুষ্ঠানের জন্য আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর অনুমতি নিতে হয়।
বাংলাদেশি শ্রমিকদের জন্য সেখানকার শ্রমবাজার উন্মক্ত থাকলেও বিভিন্ন অপরাধের সঙ্গে সম্পৃক্ততা, অবরোধ, দূতাবাসে হামলা, অবৈধভাবে কুয়েত প্রবেশসহ আরো বিভিন্ন অভিযোগে ২০০৬ সালের অক্টোবর থেকে বাংলাদেশি শ্রমিকদের জন্য কুয়েতের শ্রম বাজার বন্ধ হয়ে যায়।
এরপর থেকে দীর্ঘদিন ধরে বাংলাদেশি শ্রমিকদের জন্য সেদেশের বাজার খুলে দেওয়ার জন্য দেনদরবার চলতে থাকে।
এরপর ২০১৩ সালের ২৪ সেপ্টেম্বর বর্তমান রাষ্ট্রদূত মেজর জেনারেল মোহাম্মদ আসহাব উদ্দীন (এনডিসি পিএসসি) দায়িত্ব নেন। এরপর তিনিসহ দূতাবাসের কর্মীরা কুয়েতের আমিরসহ বিভিন্ন পর্যায়ে আলাপ-আলোচনা করেন।
এর ফলে কুয়েতের শ্রমবাজার বাংলাদেশি শ্রমিকদের জন্য ফের উন্মুক্ত হতে শুরু করে করে। ইতোমধ্যে, একটি এগ্রিকালচার কোম্পানিতে শতাধিক বাংলাদেশী কর্মী নিয়োগ পেয়েছেন।
আরো বেশ কয়েকটি কোম্পানি বাংলাদেশি কর্মীর নিয়োগের প্রক্রিয়া প্রায় সম্পন্ন করেছে।
বাংলাদেশ থেকে কোনো কর্মীর নিয়োগ প্রক্রিয়া যেন কোনো ধরনের ভিসা ট্রেডিং না হয়, সে বিষয়ে দূতাবাস সজাগ রয়েছে এবং বেশ কিছু কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে বলে দূতাবাস কর্তৃপক্ষ বাংলানিউজকে জানিয়েছে।
কুয়েতের শ্রমবাজার বাংলাদেশর কর্মীদের জন্য ফের চালু হওয়ার বিষয়ে এবং এখানকার বাংলাদেশি নাগরিকদের অপরাধমূলক কাজে জড়িত হওয়ার ঘটনা তাৎপর্যপূর্ণভাবে কমানোর পেছনে রাষ্ট্রদূতের বিভিন্ন গঠনমূলক কার্যক্রমের সাধুবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশি কমিউনিটি।
দূতাবাস জানায়, বিগত ছয় মাসে বাংলাদেশ দূতাবাস প্রবাসীদের কল্যাণে এবং বিভিন্ন বিষয়ে তাদের সচেতনতা বৃদ্ধিতে যে সব কার্যক্রম গ্রহণ করেছে, তার মধ্যে প্রবাসীদের প্রয়োজনীয় তথ্য ও সহায়তা প্রদানের জন্য বাংলাদেশ দূতাবাসে হেল্পলাইন চালু; বিমানে ভ্রমণকারী প্রবাসীদের সহায়তায় দূতাবাস থেকে লিফলেট বিতরণ; প্রতি মাসের দ্বিতীয় বুধবার দুপুর ১২টা থেকে একটা পর্যন্ত দূতাবাসে ওপেন ডে ফোরামে রাষ্ট্রদূতসহ দূতাবাসের অন্যান্য কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে বাংলাদেশি কমিউনিটির বিভিন্ন অভিযোগ শোনা এবং সেগুলোর তাৎক্ষণিক সমাধান; প্রবাসীদের স্বাস্থ্যসম্পর্কিত বিষয়ে আরো সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে দূতাবাস কুয়েতে কর্মরত বাংলাদেশি চিকিৎসকদের সহায়তায় স্বাস্থ্য সচেতনতামূলক কার্যক্রম তত্ত্বাবধায়ন; দূতাবাসের উদ্যোগে ত্রৈমাসিক নিউজলেটার প্রকাশ; এ মাসের ১৮ এপ্রিল থেকে কুয়েত রেডিওতে নিয়মিত বাংলা ভাষায় অনুষ্ঠান প্রচার প্রভৃতি।  সুত্র