মার্চে রেমিট্যান্স বেড়েছে ১১ কোটি মার্কিন ডলার

চলতি বছরের মার্চ মাসে ১২৭ কোটি মার্কিন ডলারের সমপরিমান বৈদেশিক মুদ্রা দেশে পাঠিয়েছেন প্রবাসী শ্রমিকরা। যা এর আগের মাসে ছিল ১১৬ কোটি ডলার। সে হিসেবে বছরের তৃতীয় মাসে রেমিট্যান্স প্রবাহ বেড়েছে প্রায় ১১ কোটি ডলার। বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রানীতি বিভাগের হালনাগাদ প্রতিবেদনে এ তথ্য পাওয়া গেছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিবেদনে দেখা গেছে, ২০১৩-১৪ অর্থবছরের প্রথম নয় মাসে (জুলাই-মার্চ) ১ হাজার ৪৭ কোটি ০২ লাখ ডলারের রেমিট্যান্স এসেছে। যা আগের অর্থবছরের একই সময়ে ছিলো ১ হাজার ১১২ কোটি ০৮ লাখ ডলার। সে হিসেবে গত অর্থ বছরের একই সময়ের তুলনায় রেমিট্যান্স কমেছে ৬৫ কোটি ০৬ লাখ ডলার। রেমিট্যান্স কমার কারণ জানতে চাইলে বাংলাদেশ ব্যাংকের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, সম্প্রতি মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে জনশক্তি রফতানি কমে যাওয়া, সে দেশগুলোতে বিদ্যমান রাজনৈতিক অস্থিরতা, বেসরকারি পর্যায়ে জনশক্তি রফতানিতে অনীহা, সর্বোপরি সরকারের কূটনৈতিক ব্যর্থতায় রেমিট্যান্স প্রবাহ নেতিবাচক ধারায় রয়েছে। এছাড়া বেশ কিছুদিন ধরে ডলারের বিপরীতে টাকা শক্তিশালী হওয়ায় প্রবাসীরা এখন আর আগের মতো অর্থ দেশে পাঠাতে আগ্রহী হচ্ছে না।
প্রতিবেদনে দেখা যায়, ফেরুয়ারি মাসে রাষ্ট্রীয় মালিকানার বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে রেমিট্যান্স এসেছে ৩৯ কোটি ৩০ লাখ ডলার, যা জানুয়ারিতে ছিল ৩৬ কোটি ৭৫ লাখ ডলার। বিশেষায়িত ব্যাংকের মাধ্যমে এসেছে ১ কোটি ৫৫ লাখ ডলার, যা আগের মাসে ছিল ১ কোটি ৩২ লাখ ডলার। বেসরকারি খাতের ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে এসেছে ৮৪ কোটি ০৬ লাখ মার্কিন ডলার। যা জানুয়ারি শেষে এসেছিল ৭৬ কোটি ৯৩ লাখ ডলার। আর বিদেশি খাতের ৯টি ব্যাংকের মাধ্যমে এসেছে ১ কোটি ৯০ লাখ ডলার। যা জানুয়ারিতে ছিল এক কোটি ৩৮ লাখ ডলার। এদিকে বিদায়ী বছরে প্র্রবাসী বাংলাদেশীরা এক হাজার ৩৮৪ কোটি ডলারের সমপরিমাণ মূল্যের রেমিট্যান্স দেশে পাঠিয়েছেন। যা এর আগের বছরে ছিলো এক হাজার ৪১৮ কোটি ডলার। সে হিসেবে গতবছরে রেমিট্যান্স কমেছে ৩৪ কোটি ডলার বা ২ দশমিক ৩৯ শতাংশ।