আজ জাতীয় সংগীতে রেকর্ড গড়ার দিন

কোটি কোটি কণ্ঠ আজ একসঙ্গে গেয়ে উঠবে ‘আমার সোনার বাংলা, আমি তোমায় ভালবাসি…।’ স্বাধীনতা দিবস উদ্‌যাপন উপলক্ষে রাজধানীর জাতীয় প্যারেড গ্রাউন্ডে তিন লাখ কণ্ঠে জাতীয় সংগীত পরিবেশন করে গড়া হবে বিশ্ব রেকর্ড। ‘জাতীয় সংগীত গাইব, বিশ্ব রেকর্ড গড়ব’ স্লোগানে সর্বাধিক লোকের সমবেত কণ্ঠে জাতীয় সংগীত গাওয়ার মাধ্যমে গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে আরেকটি কৃতিত্বের মালিক হবে বাংলাদেশ। ইতিহাস গড়ার এই আয়োজন করেছে সরকারের সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়। আর সার্বিক তত্ত্বাবধানে রয়েছে সশস্ত্র বাহিনী বিভাগ। অনুষ্ঠানের বিশেষ মহড়া গতকাল মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এদিকে আজ জাতীয় প্যারেড গ্রাউন্ডে যখন জাতীয় সংগীত পরিবেশন হবে, তখন দেশে-বিদেশে যে যেখানেই থাকুক না কেন, সব বাঙালিকে একসঙ্গে কণ্ঠ মেলানোর আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
সকাল ১১টায় জাতীয় সংগীত গাওয়ার মূল পর্ব হলেও অনুষ্ঠান শুরু হবে সকাল ৮টায়। এ সময় দেশবরেণ্য শিল্পীদের পরিবেশনায় অনুষ্ঠিত হবে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। ১০টা ৫৫ মিনিটে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আয়োজনের উদ্বোধন করবেন। এরপর একটি মহড়া অনুষ্ঠিত হবে। এর পরই আসবে সেই মাহেন্দ্রক্ষণ। সবার কণ্ঠে গীত হবে জাতীয় সংগীত। মোট তিনবার জাতীয় সংগীত গাওয়া হবে। এরপর রয়েছে বিমানবাহিনীর পরিবেশনা। সব শেষে থাকছে সংগীতানুষ্ঠান।
এ আয়োজনে সমাজের সর্বস্তরের মানুষ অংশ নিতে পারবে। জাতীয় সংগীত পরিবেশনায় অংশ নেবে সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের সদস্য, বিভিন্ন স্কুল-কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, পোশাকশিল্পের কর্মীসহ সমাজের বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার প্রতিনিধিরা। সকাল সাড়ে ৬টায় প্যারেড গ্রাউন্ডের প্রবেশদ্বার খুলে দেওয়া হবে। সকাল ১০টায় প্রবেশপথ বন্ধ হয়ে যাবে। এ সময়কালে আগে এলে আগে প্রবেশ করবেন ভিত্তিতে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে। সে ক্ষেত্রে তিন লাখ মানুষের বেশি হয়ে গেলেই প্রবেশপথ বন্ধ হয়ে যাবে। এর পরও যারা আসবে তারা রোকেয়া সরণিতে সমবেত হয়ে জাতীয় সংগীত পরিবেশনায় অংশ নেবে। অনুষ্ঠানটি বাংলাদেশ টেলিভিশন সরাসরি সম্প্রচার করবে। সেখান থেকে অন্য চ্যানেলগুলো বিনা মূল্যে তাদের নিজস্ব লোগো ব্যবহার করে অনুষ্ঠানটি সম্প্রচার করতে পারবে। সারা দেশের জেলা-উপজেলা এবং বিদেশের মিশনগুলোতেও সকাল ১১টায় জাতীয় সংগীত গাওয়ার আয়োজন থাকবে।
ঢাবিতে মহড়া : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনসংলগ্ন মাঠে গতকাল ‘লাখো কণ্ঠে সোনার বাংলা’ অনুষ্ঠানের মহড়া অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়টির প্রায় ১০ হাজার শিক্ষার্থী এতে অংশ নেয়। আজ এ কর্মসূচিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ১০ হাজার শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তা-কর্মচারী অংশ নেবে। আজ সকাল ৬টায় প্রশাসনিক ভবনসংলগ্ন চত্বরে সবাইকে একত্রিত হতে আহ্বান জানানো হয়েছে।
থেমে যাবে সব ট্রেন : আজ বুধবার সকাল ১১টা বাজার আগে দেশে চলাচলরত সব ধরনের ট্রেন চলাচল থেমে যাবে। লাখো কণ্ঠে জাতীয় সংগীতে কণ্ঠ মেলাবে এসব ট্রেনের যাত্রী ও চালকসহ অন্য কর্মচারীরা। জাতীয় প্যারেড গ্রাউন্ডে জাতীয় সংগীত গাওয়ার আয়োজনের সঙ্গে যুক্ত হওয়ার জন্য রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
ট্রেন চলাচল বন্ধ রাখার এ সিদ্ধান্তের বিষয়টি স্বীকার করে গতকাল রাতে রেলওয়ের মহাপরিচালক তাফাজ্জল হোসেন কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘লাখো কণ্ঠে জাতীয় সংগীত গাওয়ার এই আয়োজনের সঙ্গে আমরা যুক্ত হওয়ার সুযোগ নিতে যাচ্ছি। এটি আমাদের জন্য গর্বের বিষয়। জাতীয় সংগীতের প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর জন্য ট্রেনযাত্রীদের বিশেষ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।’
রেলওয়ের মহাপরিচালক বলেন, বাংলাদেশ রেলওয়ের যাত্রী ও পণ্যবাহী সব ধরনের ট্রেন সকাল ১১টা বাজার দুই-এক মিনিট আগে থেকেই থেমে যাবে। এরপর প্যারেড গ্রাউন্ডে জাতীয় সংগীত শুরুর সঙ্গে সঙ্গে যাত্রীরা সুর মেলাবে।

– See more at: http://www.kalerkantho.com/print-edition/first-page/2014/03/26/65690#sthash.ozAtviPY.dpuf