অর্থবছরের প্রথম ৭ মাস : ১৪১৭ কোটি ডলারের পোশাক রপ্তানি

নিজস্ব প্রতিবেদক : সব শঙ্কা কাটিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে দেশের তৈরি পোশাক খাত। প্রতি মাসেই রপ্তানি আয়ের পরিমাণ বাড়ছে এই শিল্প খাতের। চলতি ২০১৩-১৪ অর্থবছরের প্রথম সাত মাস অর্থাৎ জুলাই-জানুয়ারি সময়ে এক হাজার ৪১৭ কোটি মার্কিন ডলারের তৈরি পোশাক রপ্তানি (নিট এবং ওভেন) হয়েছে। দেশীয় মুদ্রায় যা এক লাখ ১৩ হাজার ৩৬০ কোটি টাকা (এক ডলার = ৮০ টাকা হিসাবে)।
পোশাক খাতের এই রপ্তানি-আয় আলোচ্য সময়ের লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৫ দশমিক ৯০ শতাংশ বেশি। একই সঙ্গে তা গত অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে ১৭ দশমিক ৭২ শতাংশ বেশি। অবশ্য চলতি অর্থবছরের প্রথম ছয় মাসে এই প্রবৃদ্ধি ছিল ১৯ দশমিক ৯৩ এবং পাঁচ মাস শেষে ২০ দশমিক ৭৪ শতাংশ। রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি) রোববার প্রকাশিত রপ্তানির হালনাগাদ পরিসংখ্যান থেকে এসব তথ্য জানা যায়।
আলোচ্য সময়ে দেশের মোট পণ্য রপ্তানির আয় এক হাজার ৭৪৩ কোটি ৯৫ লাখ ডলার, যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৩ দশমিক শূন্য ৪ শতাংশ এবং গত অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে ১৫ দশমিক শূন্য ৮ শতাংশ বেশি। এ ছাড়া শুধু জানুয়ারিতে ২৭৫ কোটি ৩৭ লাখ ডলারের পণ্য রপ্তানি হয়েছে।
মোট রপ্তানি আয়ের ৮১ দশমিক ২৯ শতাংশ এসেছে তৈরি পোশাক খাত থেকে। মোট এক হাজার ৪১৭ কোটি ৩২ লাখ ডলার। এর মধ্যে ওভেন পোশাক থেকে সর্বোচ্চ ৭১৭ কোটি ও নিট পোশাক খাত থেকে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৬৯৯ কোটি ডলার আয় হয়েছে।
এর আগে গত নভেম্বর ও ডিসেম্বরে পোশাক মালিকদের দুই সমিতি বিজিএমইএ ও বিকেএমইএর নেতারা তাজরীন ফ্যাশনসের অগ্নিকাণ্ড, রানা প্লাজা ধস ও রাজনৈতিক অস্থিরতায় পোশাক রপ্তানি কমে যাওয়ার আশঙ্কার কথা জানান।
এ ছাড়া ইপিবির তথ্যানুযায়ী, চলতি অর্থবছরের প্রথম সাত মাসে পাট ও পাটজাত পণ্যে ৪৬ কোটি ৬১ লাখ, হিমায়িত খাদ্যে ৪১ কোটি, হোম টেক্সটাইলে ৪৪ কোটি, চামড়ায় ২৮ কোটি ৯২ লাখ, চামড়াজাত পণ্যে ১২ কোটি ৩০ লাখ ডলার রপ্তানি আয় হয়েছে।