ব্যাংকের আমানত ছয় লাখ কোটি টাকা ছাড়িয়েছে

১৩ মাসের ব্যবধানে ব্যাংক খাতে আমানত বেড়েছে এক লাখ কোটি টাকা। আর এর মধ্যে দিয়ে দেশের ব্যাংক খাতের সংগৃহীত আমানতের পরিমাণ ছয় লাখ কোটি টাকা ছাড়িয়ে গেছে। মোট আমানতের এই হিসাবের মধ্যে নতুন ব্যাংকগুলোর সংগৃহীত আমানত প্রায় আড়াই হাজার কোটি টাকা।
বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, গত অক্টোবর শেষে ব্যাংকগুলোর মোট আমানতের পরিমাণ ছয় লাখ ১১৯ কোটি টাকায় পৌঁছায়। ২০১২ সালের সেপ্টেম্বর শেষে ব্যাংকিং খাতের মোট আমানতের পরিমাণ ছিল পাঁচ লাখ পাঁচ হাজার ৮৭০ কোটি টাকা। এর আগে আমানত এক লাখ কোটি টাকা বাড়তে সময় লেগেছিল ১৭ মাস। ২০১১ সালের মে মাসে ব্যাংকগুলোর মোট আমানত চার লাখ কোটি টাকা ছাড়ায়। বাংলাদেশ ব্যাংকের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী গত ৫ ডিসেম্বর ব্যাংকগুলোয় মোট আমানতের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ছয় লাখ ১২ হাজার ২৬৭ কোটি ৮৮ লাখ টাকা। রাজনৈতিক অস্থিরতা ও বিনিয়োগে অনীহার কারণে ব্যাংক আমানতের পরিমাণ দ্রুত বাড়ছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা।
বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রধান অর্থনীতিবিদ হাসান জামান কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘ব্যাংকগুলো আমানত সংগ্রহে তৎপর। বেসরকারি ব্যাংকগুলো গ্রাম পর্যায়ে শাখা খুলছে। আমানতের জন্য আকর্ষণীয় বিভিন্ন স্কিম চালু করছে। রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে অনেক ছোট ব্যবসায়ী বিনিয়োগ করতে না পেরে টাকা ব্যাংকে রেখে দিচ্ছেন। যে কারণে অন্যান্য সময়ের তুলনায় আমানত কিছুটা দ্রুত বেড়েছে।’
অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স, বাংলাদেশের (এবিবি) চেয়ারম্যান ও ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেডের (ইবিএল) এমডি আলী রেজা ইফতেখার বলেন, ‘বিভিন্ন কারণেই বাজারে অনেক অলস অর্থ রয়েছে। কিন্তু বিনিয়োগের সুযোগ সে রকম নেই। আবার সরকারের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানেও অনেক অর্থ রয়েছে। এই অর্থ ব্যাংকগুলোতে চলে আসায় ব্যাংকিং খাতের আমানত বাড়ছে।’
বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিবেদন বিশ্লেষণে দেখা যায়, দেশের ব্যাংক খাতে যুক্ত হওয়া নতুন ৯টি ব্যাংক এখন পর্যন্ত প্রায় আড়াই হাজার কোটি টাকা আমানত সংগ্রহ করেছে। এর মধ্যে এনআরবি কমার্শিয়াল ব্যাংকের সংগৃহীত আমানতের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৪৫৯ কোটি টাকা। সাউথবাংলা অ্যাগ্রিকালচার অ্যান্ড কমার্স ব্যাংক ৩৪০ কোটি টাকা, মেঘনা ব্যাংক ২৫৯ কোটি টাকা, মিডল্যান্ড ব্যাংক ৩১২ কোটি টাকা, ফারমার্স ব্যাংক ১২২ কোটি টাকা, ইউনিয়ন ব্যাংক লিমিডেট ৫৫৯ কোটি টাকা, এনআরবি ব্যাংকের ১৬৬ কোটি টাকা, এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংক ২৮ কোটি টাকা এবং মধুমতি ব্যাংক ১৫৬ কোটি টাকা আমানত সংগ্রহ করেছে।

সূত্র