সিলেটে উত্পাদন হচ্ছে ক্লিওপেট্রা কমলা

 
 

সিলেটে উত্পাদন হচ্ছে ক্লিওপেট্রা কমলাদেবাশীষ দেবু সিলেট

সাধারণ মানুষের কাছে পরিচিত ‘চায়না কমলা’ নামে আর কৃষিবিদদের ভাষায় ‘ক্লিওপেট্রা’। নতুন জাতের এ কমলা চাষের মধ্য দিয়েই হারানো সুদিন ফিরিয়ে আনতে চাইছেন সিলেটের চাষীরা। জেলার কয়েকটি উপজেলায় সীমিত পরিসরে হলেও এ কমলার চাষ শুরু হয়েছে। ফলনও হচ্ছে আশানুরূপ। তবে কীভাবে জাতটিকে আরো উন্নত করা যায়, সে গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছেন কৃষিবিজ্ঞানীরা।
সিলেট সিট্রাস গবেষণাকেন্দ্রের বিজ্ঞানীরা বলছেন, অন্যান্য জাতের চেয়ে ক্লিওপেট্রা জাতের কমলা গাছ অনেক বেশি প্রতিকূল আবহাওয়াসহিষ্ণু। এ কারণেই সিলেট অঞ্চলের টিলা এলাকায় ব্যাপক ভিত্তিতে জাতটি চাষের সুযোগ রয়েছে। চলতি বছর সিলেটের জৈন্তাপুর ও গোয়াইনঘাটে সীমিতসংখ্যক বাগানে এর চাষ হয়েছে। ফলনও হয়েছে ভালো।
কয়েকটি বাগান ঘুরে দেখা যায়, ছোট ছোট কমলায় হলুদ হয়ে আছে গাছগুলো। ফলের ভারে অনেকটাই নুয়ে পড়ার মতো অবস্থা। জৈন্তাপুরের কমলাচাষী শাহাব উদ্দিন জানান, পাঁচ বছর আগে শখের বশে বাড়িতে তিনটি ক্লিওপেট্রা জাতের কমলা গাছ লাগিয়েছিলেন। তিনটি গাছেই এ বছর প্রচুর ফল এসেছে। তার বাড়িতে স্থানীয় জাতের আরো ২২টি কমলা গাছ আছে। তবে নতুন জাতের ফলনই ভালো হয়েছে।
নতুন জাতের এ কমলা আকারে ছোট ও মিষ্টি কম। তবে জাতটিকে কীভাবে মিষ্টি করা যায়, তা নিয়ে গবেষণা করছেন সিলেট সিট্রাস গবেষণাকেন্দ্রের বিজ্ঞানীরা।
গবেষণাকেন্দ্রের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা শাহ মো. লুত্ফুর রহমান বলেন, ‘জাতটি নিয়ে কয়েক বছর ধরে আমরা গবেষণা করছি। এ জাতের কমলা মিষ্টি কম হওয়ায় চাষীদের মধ্যে ব্যাপক ভিত্তিতে চারা বিতরণ শুরু হয়নি। কীভাবে একে পুরোপুরি মিষ্টি করা যায়, তা নিয়ে কাজ চলছে।’
সিলেট সিট্রাস গবেষণাকেন্দ্রও পরীক্ষামূলকভাবে এর চাষ করছে। গবেষণাকেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায়, কাঁচা-পাকা কমলায় ভরে আছে কেন্দ্রের ৫০-৬০টি গাছ। কয়েকটি গাছ থেকে এরই মধ্যে বেশ কয়েকবার ফল সংগ্রহও হয়ে গেছে।
কৃষিবিশেষজ্ঞদের মতে, এ জাতের কমলা গাছের প্রধান বৈশিষ্ট্য হচ্ছে প্রতিকূল আবহাওয়ার সঙ্গে সহজেই খাপ খাইয়ে নেয়ার ক্ষমতা। এ কারণে আপাতত এ গাছের চারা জোড় কলমের কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে। এক বছর বয়সী চারার মাথা কেটে তার ওপর অন্যান্য জাতের কমলার ডাল যুক্ত করে কলম করা হচ্ছে। এ প্রক্রিয়ায় উৎপাদিত জোড় কলম চারায় এক বছর পরই ফল আসে। তবে পুরোপুরি ফলন পাওয়া যায় তিন বছর পর।