রাজস্ব আদায়ে ইতিবাচক প্রবৃদ্ধি

রাজস্ব আদায়ে ইতিবাচক প্রবৃদ্ধি নিয়ে যাত্রা করেছে নতুন অর্থবছর। চলতি অর্থবছরের জুলাই মাসে রাজস্ব আদায়ে প্রবৃদ্ধি অর্জিত হয়েছে ১১ দশমিক ৪৪ শতাংশ। আলোচিত মাসে নিট রাজস্ব আদায় হয়েছে ৬ হাজার ৩৮৫ কোটি ৮ লাখ টাকা। জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, অর্থবছরের শুরুতেই রাজস্ব আদায়ের এ প্রবণতা ইতিবাচক। কারণ গত অর্থবছরের মতো এবারও ডাবল ডিজিট দিয়ে সূচনা হল। এ ধারা বজায় রাখতে পারলে নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করা কঠিন হবে না বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।
প্রসঙ্গত, চলতি ২০১২-১৩ অর্থবছরে রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা প্রাক্কলন করা হয়েছে ১ লাখ ১২ হাজার ২৫৯ কোটি টাকা। বিশাল এই লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করা সরকারের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

এ প্রসঙ্গে এনবিআর সদস্য (কর প্রশাসন ও পরিচালনা) এমএ কাদের সরকার সকালের খবরকে বলেন, চলতি অর্থবছরের রাজস্ব আহরণের বিশাল এ লক্ষ্যমাত্রা অর্জন এনবিআরের জন্য একটি বড় চ্যালেঞ্জ। তবে অর্থবছরের শুরু থেকেই এ বিশাল লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে মনিটরিং ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। একই সঙ্গে মানুষের মধ্যেও কর দেওয়ার প্রবণতা বেড়েছে। এসব কারণেই অর্থবছরের প্রথম মাসে রাজস্ব আদায়ে ইতিবাচক প্রবৃদ্ধি নিয়ে যাত্রা শুরু হয়েছে। আর এ ধারা বজায় থাকলে নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করা কঠিন হবে না বলে মনে করেন তিনি।

সূত্র জানায়, এনবিআরের প্রথম মাসের রাজস্ব আদায় সংক্রান্ত প্রতিবেদন বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, চলতি অর্থবছরের জুলাই মাসে নিট রাজস্ব আদায় হয়েছে ৬ হাজার ৩৮৫ কোটি ৮ লাখ টাকা। গত অর্থবছরের একই সময়ে আদায়ের পরিমাণ ছিল ৫ হাজার ৭২৯ কোটি ৭৪ লাখ টাকা। গত অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় প্রায় ৬৫৫ কোটি ৩৪ লাখ টাকা বেশি আদায় হয়েছে।

সমাপ্ত অর্থবছরে ৯৪ হাজার ৪৪৭ কোটি ৬৪ লাখ টাকা নিট রাজস্ব আদায় করেছে এনবিআর, যা এ যাবত্কালের মধ্যে সর্বোচ্চ। গত অর্থবছরের সংশোধিত লক্ষ্যমাত্রার চেয়েও প্রায় ২ হাজার ৭৭ কোটি ৬৪ লাখ টাকা বেশি আদায় হয়েছে। ২০১১-১২ অর্থবছরে রাজস্ব আহরণের সংশোধিত লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল ৯২ হাজার ৩৭০ কোটি টাকা।

এনবিআর সূত্রে জানা গেছে, চলতি অর্থবছরের জুলাই মাসে সবচেয়ে বেশি প্রবৃদ্ধি অর্জিত হয়েছে আয়কর খাতে। এ খাতে জুলাই মাসে রাজস্ব আদায় হয়েছে ১ হাজার ৪১২ কোটি ৫০ লাখ টাকা। প্রবৃদ্ধি হয়েছে ১৯ দশমিক ৯৮ শতাংশ। ২০১২-১৩ অর্থবছরের প্রথম মাসে রাজস্ব আহরণের দিক থেকে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে আমদানি পর্যায়ের শুল্ক বিভাগ। আমদানি শুল্ক, মূল্য সংযোজন কর (আমদানি পর্যায়ে), সম্পূরক শুল্ক (আমদানি পর্যায়ে) এবং রফতানি শুল্ক মিলিয়ে এ খাত থেকে ২ হাজার ৭৫১ কোটি ৪০ লাখ টাকা নিট রাজস্ব আদায় হয়েছে। গত অর্থবছরের একই সময়ে প্রায় ২ হাজার ২৫১ কোটি ৩৪ লাখ টাকা আদায় হয়েছিল। সে ক্ষেত্রে চলতি অর্থবছরের প্রথম মাসে প্রায় ৫০০ কোটি ৬ লাখ টাকা বেশি আদায় হয়েছে। ফলে এ খাতে সার্বিকভাবে ২২ দশমিক ২১ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জিত হয়েছে। তবে স্থানীয় পর্যায়ে মূল্য সংযোজন কর বা ভ্যাট আদায় পরিস্থিতি ভালো অবস্থানে নেই। আবগারি শুল্ক, মূসক (স্থানীয় পর্যায়ে) ও সম্পূরক শুল্ক (স্থানীয় পর্যায়ে) ও টার্নওভার ট্যাক্স মিলিয়ে অর্থবছরের শুরুতেই নেতিবাচক প্রবৃদ্ধি দিয়ে যাত্রা শুরু করেছে এ খাতটি। চলতি অর্থবছরে জুলাই মাসে এসব খাত থেকে সব মিলিয়ে ২ হাজার ১৭৫ কোটি ৫৮ লাখ টাকা রাজস্ব আদায় হয়েছে। অন্যদিকে গত অর্থবছরের একই সময়ে আদায় হয়েছিল ২ হাজার ২৭২ কোটি ১ লাখ টাকা। সে ক্ষেত্রে গত অর্থবছরের তুলনায় প্রায় ৯৬ কোটি ৪৩ লাখ টাকা কম আদায় হয়েছে। এছাড়া অর্থবছরের প্রথম মাসে ভ্রমণ কর থেকে ৪৫ কোটি ৫৯ লাখ টাকা এবং অন্যান্য কর খাত থেকে ১ লাখ টাকা রাজস্ব আদায় হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ২০১২-১৩ অর্থবছরে রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ১ লাখ ১২ হাজার ২৫৯ কোটি টাকা, যা গত অর্থবছরের চেয়ে ১৮ দশমিক ৮৬ শতাংশ বেশি। এর মধ্যে আয়কর থেকে ৩৫ হাজার ৩০০ কোটি, মূসক বা ভ্যাট থেকে ৪০ হাজার ৪০০ কোটি, আমদানি পর্যায়ের শুল্ক থেকে ৩৫ হাজার ৬০০ কোটি এবং অন্যান্য কর থেকে ৯৫৯ কোটি টাকা আসবে বলে ধরা হয়েছে।