জুলাইয়ে রেমিটেন্স এসেছে ১২০ কোটি ডলার

ঈদ সামনে রেখে প্রবাসীদের টাকা পাঠানোর পরিমাণ বাড়ায় চলতি অর্থবছরের প্রথম মাস জুলাইয়ে প্রায় ১২০ কোটি ডলারের রেমিটেন্স দেশে এসেছে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, এটি এ পর্যন্ত আসা দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রেমিটেন্স। সর্বোচ্চ ১২২ কোটি ডলার রেমিটেন্স এসেছিল গত জানুয়ারিতে।

গত অর্থবছরের শেষ মাস জুনে ১০৭ কোটি ডলার দেশে পাঠিয়েছিলেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা।

রেমিটেন্স প্রবাহ বাড়ায় কেন্দ্রীয় ব্যাংকের বিদেশি মুদ্রার রিজার্ভও বেড়েছে। বৃহস্পতিবার দিনের শুরুতে রিজার্ভের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ১০ দশমিক ৬৫ বিলিয়ন ডলার।

জুলাই মাসের প্রথম সপ্তাহে এশিয়ান ক্লিয়ারিং ইউনিয়নের (আকু) আমদানি দেনা পরিশোধের পর রিজার্ভ ১০ বিলিয়ন ডলারের নিচে নেমে এসেছিল।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর আতিউর রহমান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, ব্যাংকিং চ্যানেলের মাধ্যমে রেমিটেন্স বাড়াতে বাংলদেশ ব্যাংক নানা পদক্ষেপ নিয়েছে। এখন প্রবাসীরা মোবাইল ফোনে এসএমএসের মাধ্যমে পরিবারের কাছে টাকা পাঠাতে পারছেন। এ সব পদক্ষেপের ফলে রেমিটেন্স বাড়ছে। বাড়ছে রিজার্ভও।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের একজন কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, ঈদ সামনে রেখে প্রবাসীরা তাদের পরিবার-পরিজনের কাছে বেশি টাকা পাঠাচ্ছেন। এ কারণে জুলাই মাসে বেশি রেমিটেন্স এসেছে।

গত অর্থ বছরে ১২ দশমিক ৮৫ বিলিয়ন ডলার রেমিটেন্স দেশে এসেছিল, যা আগের অর্থবছরের চেয়ে ১০ দশমিক ২৬ শতাংশ বেশি।

২০১০-১১ তে রেমিটেন্সে প্রবৃদ্ধি হয়েছিল ৬ শতাংশ।

 সুত্র