বিদ্যুৎ উৎপাদনে নতুন রেকর্ড ৬২৭৯ মেগাওয়াট

বুধবার বিদ্যুৎ উৎপাদনে নতুন রেকর্ড করেছে পিডিবি। এদিন রাত ৯টায় ৬২৭৯

মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন হয়। এ সময় দেশের কোথাও লোডশেডিং হয়নি বলে দাবি করেছে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি) জনসংযোগ পরিদপ্তরের পরিচালক সাইফুল হাসান চৌধুরী।

সাইফুল হাসান চৌধুরী আরো জানান, এর আগে ২২ জুলাই দ্বিতীয় রমজানে সবোচ্র্চ ৬ হাজার ১৪৪ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করা হয়।
বুধবারের আগে দেশে সর্বোচ্চ বিদ্যুৎ উৎপাদনে রেকর্ড ছিল গত ২০ মার্চ। ওইদিন এশিয়া কাপ ক্রিকেট খেলার জন্য সবোচ্র্চ বিদ্যুৎ উৎপাদন করা হয়েছিল ৬ হাজার ৬৬ মেগাওয়াট।

উল্লেখ্য, বুধবার বিদ্যুৎ উৎপাদনের ক্ষমতা ছিল ৮ হাজার ২৭৯ মেগাওয়াট। বতর্মানে দেশে বিদ্যুতের প্রকৃত চাহিদা প্রায় সাড়ে সাত হাজার মেগাওয়াট হলেও ‘ডিমান্ড সাইড ম্যানেজমেন্ট’র মাধ্যমে তা প্রায় সাড়ে ছয় হাজার মেগাওয়াটে সীমিত রাখা হয়েছে।

রোজা শুরুর আগে জ্বালানি উপদেষ্টা ঘোষণা করেন, প্রয়োজনে সবোচ্র্চ বিদ্যুৎ উৎপাদন করা হবে। কোনোভাবেই ৩০ মিনিটের বেশি লোডশেডিং দেয়া হবে না।
তিনি আরো বলেছিলেন, কোনোভাবেই ইফতার ও তারাবির নামাজের সময় লোডশেডিং দেয়া হবে না। কিন্তু তার সে কথার সঙ্গে বাস্তবতার মিল পাওয়া যাচ্ছে না।
লেলিন হাজি নামে এক গ্রাহক ফোনে জানান, সোমবার তারাবির নামাজের সময় দুই দফায় বিদ্যুতের লোডশেডিং দেয়া হয়। এছাড়া দিনের অন্যান্য সময়ও বিদ্যুৎ আসা-যাওয়া করেছে বলে দাবি করেন তিনি।

মেহেরপুর জেলার এক গ্রাহকও লোডশেডিং দেয়ার অভিযোগ করেন।

বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর সরকারি ও বেসরকারি খাতে ৫৬টি বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণের চুক্তি করেছে। এর মধ্যে ২৯টি কেন্দ্র উৎপাদন শুরু করেছে। এছাড়া গত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে চুক্তি করা আরো ১৯টি কেন্দ্রও বর্তমান সরকারের সময় উৎপাদনে এসেছে।